নিউজ ডেস্ক, নিউ দিল্লীঃ- অগস্টা ওয়েস্টল্যান্ড কপ্টারের বরাত পেতে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং-কে চাপ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের । 
ছবিঃ- সংগৃহীত 

প্রায় ১০ বছর পর হাতে এল চিঠি, আর তা প্রকাশ হতেই উত্তাপ বাড়ল রাজধানীর রাজনৈতিক মহলে । প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে রাফাল যুদ্ধ বিমান নিয়ে সোচ্চার হতে গিয়ে মুখ পুরল খোদ কংগ্রেসের । ২০০৯ সালের ২৮ আগস্ট অগস্টা কপ্টার চুক্তির মূল মধ্যস্থতাকারী ব্রিটিশ নাগরিক ক্রিশ্চিয়ান মিশেলের লেখা চিঠি সামনে আসতেই তীব্র অস্বস্তিতে পড়ল কংগ্রেস । কয়েক পাতার চিঠিটির পুরো বয়ানটিই প্রকাশিত করেছে সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থা ইন্ডিয়া টুডে টিভি । অগস্টা ওয়েস্টল্যান্ডের ব্রিটিশ অংশীদারি সংস্থা ফিনমেকানিকা দেখাশোনা করত অগস্টা কপ্টারের মার্কেটিং, সেইসময় মধ্যস্থতাকারী ক্রিশ্চিয়ান মিশেল ফিনমেকানিকার প্রধান গিউসেপি ওরসিকে চিঠিটি লিখেছিলেন । যদিও ফিনমেকানিকা সংস্থাটি বর্তমানে লিওনার্ডো নামে পরিচিত ।   

কি ছিল সেই চিঠিতে, যা সামনে আসতেই তীব্র অস্বস্তিতে পড়ল কংগ্রেস, ১৯ থেকে ২৩ জুলাই হিলারি ক্লিনটন ভারত সফরে এসে মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে বেশ কয়েকটা গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করেছিলেন। সেখানে হিলারি মনমোহন সিং-কে প্রশ্ন করেছিলেন বাজার দরের তুলনায় বেশি দরের, রক্ষণাবেক্ষণে প্রচুর খরচবাহী অগস্টা ১০১ কেন কিনছে ভারত ? এইকথা শোনার পর মনমোহন সিং বেঁকে বসে অগস্টা ১০১ ডিল বাতিল করার সিদ্ধান্ত প্রায় নিয়ে নিয়েছিলেন । অগস্টার কপ্টার কেনার জন্য পিএমও (প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের অফিস)-র মনোভাব ও সিদ্ধান্ত জানার পরই অগস্টার বরাত বাতিলের আশঙ্কায় আমি ও আমার এজেন্টরা চাপ বাড়াই সিসিএসের (ক্যাবিনেট কমিটি অন সিকিউরিটি) উপর । প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে মন্ত্রী ও আমলারা কী বলেছেন তার সব তথ্যই মোটামুটি আমার হাতে রয়েছে, কথা হয় ভারতের বায়ুসেনা প্রধান ত্যাগীর সঙ্গে এবং ভারতের প্রতিরক্ষা সচিবের সাথে । তারা জানান, নিশ্চিন্তে থাকুন কাজ হয়ে যাবে । এর কয়েক দিন পরেই অগস্টা নিয়ে চূড়ান্ত সবুজ সঙ্কেত দেয় ভারত সরকার।         
ছবিঃ- সংগৃহীত 

এই চিঠি সামনে আসতেই চরম অস্বস্তিতে কংগ্রেস, ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে দেশের নিরাপত্তার থেকে ভারতের তৎকালীন আমলা ও মন্ত্রীদের টাকা বা কাটমানির লোভ যে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ ছিল তা সামনে চলে এল । কিভাবে মনমোহন সিং এবং হিলারি ক্লিনটন-এর আলোচনা ক্রিশ্চিয়ান মিশেলের কাছে পৌঁছল আর সেখানে এক প্রভাবশালীর নির্দেশে কিভাবে অগস্টা ১০১ ডিল হল, দেশের নিরাপত্তাকে পেছনে ফেলে বিপুল কাটমানির জন্যই যে উপরমহল থেকে এই নির্দেশ এসেছিল তার চিত্রও বর্তমানে পুরো পরিষ্কার ভারতবাসীর কাছে বলেও মত প্রকাশ করেছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা ।   

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]