নিউজ ডেস্ক,নয়া দিল্লীঃ-

পাকিস্তানের বিরদ্ধে ক্ষোভ ছিল আগেই,পুলওয়ামার সন্ত্রাসবাদী হামলা সেই ক্ষোভের আগুনে ঘৃতাহুতি করেছে৷পুলওয়ামা জঙ্গি হামকার পর ভয়াবহ পরিণতির হুমকি দিয়েছেন পিএম মোদী৷পাল্টা জানাতে দেরি করেননি পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান৷তিনি বলেন প্রত্যাঘাতের জন্য তৈরি পাক সেনাও৷যুদ্ধের হুমকির পর আন্তর্জাতিক স্তরেও পাকিস্তানকে একঘরে করার উদ্যোগ নিয়েছে ভারত৷ভারতের পক্ষে থেকে পাকিস্তানকে FTF অর্থাৎ ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স এ নিষিদ্ধ ঘোষণা করার দাবি জানানো হয়েছে৷কূটনৈতিক ভাবে পাক অর্থনীতিকে বড়সড় ধাক্কা দিতেই নয়াদিল্লির এই উদ্যোগ৷এর আগে ২০১৮ সালে সন্ত্রাসে মদত দেওয়ার অভিযোগে FTF পাকিস্তানকে ধূসর তালিকা অর্থাৎ গ্রে-লিস্টে রেখেছিল৷ভারতের পক্ষ থেকে পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার পর তথ্য-প্রমাণ পেশ করা হয়েছে৷আগামী জুন মাসে ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স আর্তর্জাতিক এই সংগঠনের পর্যালোচনা বৈঠক রয়েছে,সেখানেই নেওয়া হতে পারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত৷ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স এ নিষিদ্ধ ঘোষণা হলে বিশ্ব আর্থনীতিতে আরও কোনঠাসা হয়ে যাবে পাক অর্থনীতি৷সারা বছর পাওয়া বিপুল পরিমাণ অর্থসাহায্যের একটা বড় অংশ চলে যায় পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদীদের ফান্ডে ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্সের এমনই অভিযোগ ছিল ইসলামাবাদের বিরদ্ধে।অনেকবার সাবধান করার পরও বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখে নি পাকিস্তান এই অভিযোগে ২০১৮ সালে পাকিস্তানকে ধূসর তালিকাভুক্ত করে FTF৷এই ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স মূলত অর্থ তছরুপ, সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলির হাতে অর্থ সরবরাহ রুখতে কাজ করে।ভারত এই ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স-এর সদস্য৷ভারতের বারাবার অভিযোগ করে আসছে পাকিস্তানকে দেওয়া সাহায্যের অর্থ লস্কর-এ-তৈবা,হাক্কানি নেটওয়ার্ক,জইশ-এ-মহম্মদ,জামাত উদ দাওয়ার মতো উগ্রবাদী সংগঠনের কাছে পৌঁছে যাচ্ছে।এই জঙ্গি সংগঠন গুলি পাক সেনা ও গোয়েন্দা সংস্থা ISI এর নির্দেশে কাজ করে চলেছে৷ভারত বহুবার প্রমাণ দেওয়ার ইসলামাবাদ কোন করেনি৷পুলওয়ামার মতো ঘটনা বারংবার ঘটে চলেছে৷পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার পর ভারতের উদ্যোগে ইতিমধ্যেই কোণঠাসা ইমরানের সাধের “নেয়া পাকিস্তান”৷ গোটা বিশ্ব ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে৷তাই ঘটনার পাঁচ দিন পর পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে প্রকাশ্যে আলোচনার কথা বলতে হয়েছে৷পাশাপাশি গৃহবন্দি করা হয়েছে ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেড আতাঙ্কবাদি হাফিজ সঈদ ও তার সংগঠন লস্কর-এ-তৈবা কে৷এখনই FTF পাকিস্তানকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করলে চাপ বাড়বে ইসলামাবাদের উপর৷   

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]