নিউজ ডেস্ক, শিলং – হাইকোর্টের বিচারপতি মতে দেশভাগের পর ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র ঘোষণা করা উচিত ছিল । 

দেশভাগের পর যদি পাকিস্তান নিজেদের ইসলামিক রাষ্ট্র হিসাবে ঘোষণা করতে পারে তবে ভারত কেন নয় । ভারতেরও উচিত ছিল দেশভাগের পর হিন্দু রাষ্ট্র হিসাবে ঘোষণা করা । আপাতত এই মন্তব্যের জেরেই খবরের শিরোনামে মেঘালয় হাইকোর্টের বিচারপতি এস আর সেন । শুধু এইটুকুই নয়, তিনি আরও বলেন, “ভারতকে ইসলাম রাষ্ট্র তৈরির চেষ্টা কারওরই কখনও করা উচিত নয় ৷ আমি বিশ্বাস করি, একমাত্র নরেন্দ্র মোদিজির সরকারই এই মর্ম বুঝবে এবং আশা করি এই সরকার যথাযথ পদক্ষেপ করবে৷ 

সোমবার আমন রানা নামক এই ব্যক্তির মামলার শুনানি চলাকালীন এই মন্তব্য করেন তিনি । মেঘালয় হাইকোর্টের বিচারপতির এই মন্তব্যের পর দেশজুড়ে আলোচনার বিষয় হয়ে উঠেছেন তিনি ৷ সাথে তিনি মুসলিমদের শরিয়ত আদালতের দাবীর কড়া সমালোচনা করে জানান, ভারতের প্রতিটি নাগরিকের জন্য একটি আইন থাকা উচিত৷ যে ওই আইন ও সংবিধানের বিরোধিতা করবে, তাকে ভারতের নাগরিক হিসেবে গণ্য না করা উচিত৷ আমি মুসলিম ভাই-বোনদের বিরোধী নই কিন্তু যাঁরা ভারতে বসবাস করছেন এবং ভারতের সংবিধান ও ভারতের আইনকে মানছেন, তাঁদের শান্তিতে এ দেশে বসবাস করতে দেওয়া দরকার৷ 

মেঘালয় হাইকোর্টের বিচারপতির এই মন্তব্যের পর তার কড়া সমালোচনা করে লোকসভা সদস্য আসাদউদ্দিন ওয়াইসি । তিনি বলেন, এটা কী ধরনের রায়? আইন ব্যবস্থা ও সরকার কি এই বিষয়টিকে গুরুত্ব দিচ্ছে? ভারত কখনওই ইসলামিক রাষ্ট্র হবে না৷ ভারত সর্বদাই ধর্মনিরপেক্ষ দেশ থাকবে৷ সেইসাথে মেঘালয় হাইকোর্টের বিচারপতির বিরুদ্ধে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগও তোলেন তিনি৷ অপরদিকে তার এই মন্তব্য অন্য ইঙ্গিত দিচ্ছে বলে অভিমত করছেন বিশেষজ্ঞরা । তারা বলছেন হিন্দুত্বের নাড়া দিয়েও সদ্য হওয়া ৫ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির যে পরাজয় হয়েছে, সেখানে দাড়িয়ে কিছুটা মনবল হারানো বিজেপি কর্মীদের যে বিচারপতির এই মন্তব্য আবার নতুন উদ্যমে কাজ করার উৎসাহ জোগাবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না ।  

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]