কীভাবে ধর্ষণ বা গণধর্ষণ করতে হয় এই ব্যাখ্যা দেওয়া পোস্ট ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। ‘ওয়ান মিলিয়ন এগেনস্ট চাইল্ড অ্যাবিউজ’ অভিযানের প্রধান প্রাণাধিকা সিনহা দেববর্মণ (Prannadhika Sinha Devburman) ৮ অক্টোবর কলকাতা পুলিশকে ‘কীভাবে ধর্ষণ করবেন?’ এই পোস্টটির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের বাইরেও পোস্টটির উদ্ভব হতে পারে বলে পুলিশ আইনি মতামত চেয়েছে।

প্রাণাধিকা কলকাতা পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা এবং যুগ্ম সিপি (অপরাধ) মুরলিধর শর্মা-কে পোস্টটি শেয়ার করে টুইট করেন, “দয়া করে এটি দেখার জন্য আমি কলকাতা পুলিশ ও সিপিকে অনুরোধ করছি, আমাদের চারপাশে যৌন সহিংসতা বাড়ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন ব্যক্তিদের কোনও প্রয়োজন নেই যারা কীভাবে মহিলাদের ধর্ষণ বা গণধর্ষণ করা যায় সে সম্পর্কে নির্দেশাবলী শেয়ার করেন। সাহায্য করুন”। কীভাবে ধর্ষণ করা যায় সে সম্পর্কে বিস্তারিত পোস্টের স্ক্রিনশটও শেয়ার করেছেন তিনি।

তাঁর মন্তব্যের জবাবে কলকাতা পুলিশ টুইট করে জানায়, “আপনি প্রোফাইলটির বিবরণের লিঙ্ক দিয়ে এই বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ দায়ের করুন। প্রোফাইলের লিঙ্কগুলি রিপোর্ট করার অনুরোধ করা হয়েছে।” যদিও কোনও মামলা দায়ের করা হয়নি। পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার সঙ্গে কথা বলার পরে সাইবার আইন বিশেষজ্ঞ বিভাস চ্যাটার্জি জানান, পুলিশ মামলাটি দায়ের করার পাশাপাশি যে ব্যক্তি এই পোস্টটি লিখেছিল এবং এটি যে বাংলাদেশের লেখা বলে মনে করা হচ্ছে তাও খতিয়ে দেখা হবে।

“এখানে ধর্ষণ না হলেও, এটি কেবল অসুস্থ মানসিকতা যা ধর্ষণের উস্কানিমূলক পোস্ট। এই ঘটনা অশ্লীল ও অবমাননাকর এবং তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৬৭ এবং ৬৭-র (ক) আইনের অন্তর্গত”, বলে জানান বিভাসবাবু।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]