নিউজ ডেস্ক কলকাতা ঃ-

মমতা ব্যানার্জীর সরকার সরাসরি বাঁধা দিলো কেন্দ্রীয় সংস্থা সিবিআই কে। চিটফান্ড সংক্রান্ত জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আজ পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বাড়িতে যাওয়ার সিধান্ত নিয়ে সিবিআই। কিন্তু কলকাতার পুলিশ  সিবিআইকে রাজীব কুমারের বাড়িতে ঢুকতে বাধা দেয়।গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে সিবিআইকে আটকানোর কোনো নিয়ম নেই।সিবিআইয়ের কাজে বাধা দেওয়া দেশের গণতন্ত্রকে চ্যালেঞ্জ করার সামিল। তবে কলকাতা পুলিশ কোনো কিছুর তোয়াক্কা না করেই সিবিআইয়ের কাজে বাধা দেয়।শুধু বাধা নয়,সিবিআই আধিকারিকদের আটকও করেছে কলকাতার পুলিশ।
জানা যায় সিবিআই এর গাড়ির চালকেও ঘাড় ধাক্কা দিয়ে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সিবিআই তাদের উপযুক্ত প্রমান নিয়ে কলকাতা পুলিস কমিশনার রাজীব কুমারের লউডন স্ট্রিটের বাড়ির সামনে উপস্থতি হয়েছিল।কিন্তু আগাম খবর পেয়েই পুলিশ পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে এবং সিবিআই কে আটকাতে তৎপর হয়ে পড়ে।
সিবিআই এর আধিকারিকদের জোরপূর্বক গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় শেক্সপিয়ার থানায়। কলকাতা পুলিশ কেন্দ্রীয় সংস্থার কাজে এইভাবে কেন বাধা দিয়েছে সেই নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু হয়েছে। শুধু তাই নয়,অনেকেই দাবি করছেন কলকাতা পুলিশ এমন কাজ করেছে শুধুমাত্র মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর নির্দেশে, এর কারণ সিবিআই আধিকারিকদের গ্রেপ্তারের পরই মমতা ব্যানার্জী রাজীব কুমারের বাসভবনে মিটিং করতে যান।এখন প্রশ্ন হচ্ছে সিবিআই তদন্তে মমতা কেন এত উদ্বিগ্ন?
প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে মমতা যদি দুর্নীতিতে যুক্ত নাই থাকেন তবে কেন সিবিআই কে আটকানো হল? যদি কলকাতা পুলিশ তাদের এই নিয়ম বজায় রাখে তবে সিবিআই কেন্দ্রীয় বাহীনির সাহায্য নিতে পারে বলেও খবর পাওয়া যাচ্ছে। আর যদি কেন্দ্রীয় বাহিনী নামানো হয় তবে পরিস্থিতি আরো লজ্জাজনক ও ভয়ানক হবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]