নিউজ ডেস্ক, নিউ দিল্লীঃ- রুশ অস্ত্রে ভরসা ভারতের, ফাটল মার্কিন প্রশাসনের অন্দরে । 


গত ৪ ও ৫ই অক্টোবর ভারত ও রাশিয়ার যৌথ সম্মেলনে যোগদিতে ২ দিনের ভারত সফরে দিল্লী এসেছিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন । সম্মেলনে নানান আলোচনার পাশাপাশি স্বাক্ষরিত হয় এস-৪০০ মিসাইল চুক্তি । ভারত ও রাশিয়ার এই চুক্তিতেই বিমত পোষণ করে মার্কিন প্রশাসন । তবে এর বিরধীতা নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত মার্কিন প্রশাসনের অন্দর । 

ভারতের রাশিয়ার কাছ থেকে সর্বাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী ব্যবস্থা ‘এস-৪০০’ কেনার চুক্তিতে সই করার পর ভারতের বিরুদ্ধে আমেরিকা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারি করবে কি না, তা নিয়ে মতবিরোধ দেখা দিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব জিম ম্যাটিস ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের মধ্যে। তবে এই বিষয়ে সর্বশেষ সিদ্ধান্ত নেবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্প। বিশেষজ্ঞদের মতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ম্যাটিস আর বোল্ট এর মধ্যে যে বিষয়টির গুরুত্ব বোঝাতে সক্ষম হবে, তার ওপরেই নির্ভর করছে ভারতের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারির প্রশ্নটি। মার্কিন পণ্যে শুল্ক চাপানোর ব্যাপারে দিল্লির উৎসাহ দেখে হালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অবশ্য ভারতকে কিছুটা কটাক্ষ করে ‘টারিফ কিং’-এর তকমা দিয়েছিলেন ।

সূত্রের খবর অনুসারে, মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব জিম ম্যাটিস ভারতকে গরম চোখে দেখার বিরোধীতা করছেন কারন রাশিয়ার কাছ থেকে ‘এস-৪০০’ কেনার চুক্তি সই সম্পূর্ণ ভারতের ব্যাপার এবং ভারতের প্রতিরক্ষার বিয়ে হস্তক্ষেপ করে ভারতের বিরুদ্ধে মার্কিন অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারি করার কোন মানে হয়না, কারন ভারত আমেরিকার শত্রু দেশ নয়, ভারতের সাথে আমেরিকার সুসম্পর্ক বহুদিনের, সেইসাথে পাকিস্থানের জঙ্গি দমন নীতি নিয়েও একসাথে কাজ করেছে ভারত ও আমেরিকা । অপরদিকে, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনে ভারতের বিরুদ্ধে এখনই ওই নিষেধাজ্ঞা জারি হোক, সেটা চাইছেন । তার বক্তব্য, গত মাসেই যখন রুশ ‘এস-৪০০’ কেনার জন্য চিনের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে, তখন ভারতই বা ছাড় পাবে কেন? 

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]