নিউজ ডেস্ক, আগরতলাঃ- রক্ত সঙ্কটে ভুগছে ত্রিপুরা , রক্তের জোগান অক্ষুণ্ণ রাখতে আর্জি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর । 

এই মুহূর্তে ত্রিপুরার সবথেকে বড় সমস্যা হল, রক্তের অভাব । রক্ত সঙ্কটে ভুগছে রাজ্যের ব্লাডব্যাঙ্ক গুলি । যদিও বিগত কয়েকমাসে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে প্রতিনিয়ত রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল, তবুও কেন রক্তের সঙ্কট । এই ব্যাপারে রাজ্যের মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুদীপ রায় বর্মণ জানান, মুমূর্ষু রোগীদের প্রাণ রক্ষার ক্ষেত্রে রক্তের যোগান এবং রক্তদাতাদের ওপর অনেকটা নির্ভরশীল থাকেন রোগীরা । সেই অবস্থা সামাল দিতে যদিও বিভিন্ন সংস্থা, ক্লাব ও রাজ্য সরকারের তরফ থেকে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়, তবুও দেখা যায় কখনো কখনো যতটা প্রয়োজন তার তুলনায় অনেক বেশি রক্ত সংগ্রহীত হচ্ছে আবার কখনো প্রয়োজনের তুলনায় কিছুই পাওয়া যাচ্ছে না ফলে রক্তের সামঞ্জস্যতা বজায় থাকছে না ব্লাডব্যাংকে । এছাড়াও রক্ত ৩৫ দিনের বেশি সংরক্ষণ করা যায় না তাই আয়োজকদের সুবিধামতো রক্তদান শিবিরের আয়োজন করলে কিছু অসুবিধা লক্ষ্য করা যায় । যে কারণে আটকে পড়ে বহু জরুরি অপারেশন, থ্যালাসেমিয়া, ক্যান্সার আক্রান্তদের রক্ত সঞ্চালন সহ সুস্থ প্রসব কালীন ব্যবস্থাপনা । 

ঠিক এই কারণেই যাতে রাজ্যের ব্লাডব্যাঙ্ক গুলিতে রক্তের যোগান সব সময় সঠিক থাকে এবং অতিরিক্ত রক্ত যাতে নষ্ট না হয়ে যায় তাই মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুদীপ রায় বর্মন আগামী ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮ বেলা ১১.৩০ নাগাদ আগরতলা টাউনহল এক আলোচনাচক্রের আয়োজন করেছেন, যেখানে তিনি আহ্বান জানিয়েছেন রাজ্যের প্রতিটি ক্লাব, প্রতিটি সংস্থা এবং প্রতিটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গুলির প্রতিনিধিদের । কিভাবে জীবনদায়ী রক্তের চাহিদা এবং যোগানের মধ্যে যে ফারাক দূর করে ১০০% স্বেচ্ছায় রক্তদানের মাধ্যমে রাজ্যের ব্লাডব্যাংক গুলিতে সব সময় রক্তের যোগান বজায় রাখা সম্ভব এবং কিভাবে বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে রক্তদান শিবিরের ক্যালেন্ডার তৈরি করে প্রতিটি সংস্থা বছরে অন্তত তিনবার করে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করতে পারে সেই ব্যাপারেও আলোচনা হবে বলে জানান তিনি । আজ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে রাজ্যের প্রতিটি ক্লাব, প্রতিটি সংস্থা, এবং প্রতিটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গুলিকে মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ২৯ তারিখ আয়োজিত রক্তদান শিবির সংক্রান্ত বৈঠকে উপস্থিত থাকার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন । 

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]