নিউজ ডেস্ক, নিউ দিল্লীঃ- যৌন হেনস্থার অভিযোগের ভিত্তিতে চাকরি খোয়াতে পারেন বিদেশ প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবর । 

ক্রমশ বাড়ছে মিটু আন্দোলনে সমর্থন, আর তার জেরেই চাকরি খোয়াতে পারেন বিদেশ প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবর ।  কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণমন্ত্রী মেনকা গাঁধীর পর এবার এই আন্দোলনকে সমর্থন করলেন কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। অন্য দিকে মিটু বিতর্কে পাশে দাঁড়িয়েছে সঙ্ঘ পরিবারও।

প্রসঙ্গত, বিদেশ প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবরের বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত সাত জন মহিলা সাংবাদিক যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন এবং এই বিষয়ে অন্যরা পাশ কাটিয়ে গেলেও সরব হয়েছিলেন কেবলমাত্র মেনকা গান্ধী । সঠিক তদন্তের দাবীও তুলেছিলেন তিনি এবার মেনকা গান্ধীর মতোই নির্যাতিতাদের পাশে দাঁড়ালেন স্মৃতি ইরানি । বৃহস্পতিবার মুম্বাইয়ে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে ইরানি বলেন, আমি মনে করি, যিনি অভিযুক্ত, তাঁরই বিবৃতি দিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করা উচিত। আমি তো সেখানে উপস্থিত ছিলাম না তাই ঘটনার সঙ্গে যিনি যুক্ত, তিনিই ভাল বলতে পারবেন। এই ঘটনায় সাংবাদিকরা যে তাঁদের সহকর্মী-বন্ধুদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন, সেই বিষয়েরও প্রসংসা করেন তিনি । সেইসাথে যারা কর্মক্ষেত্রে বা পেশাগত জগতে এ রকম ঘটনার মুখোমুখি হয়েছেন, তাঁদের লজ্জা না পেয়ে প্রকাশ্যে এসে মিটু অন্দোলনে যোগ দেওয়ার আহ্বানও জানিয়েছেন স্মৃতি এবং আশ্বাস দিয়েছেন সুবিচারের। স্মৃতি ইরানির এই ধরনের মন্তব্যের পরে এই বিষয় নিয়ে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলেন, কার্যত বিদেশে থাকা অভিযুক্ত বিদেশ প্রতিমন্ত্রী আকবরের বিরুদ্ধেই কড়া বার্তা দিলেন স্মৃতি।

অপরদিকে সঙ্ঘ পরিবারও বৃহস্পতিবার এই বিষয়ে মত প্রকাশ করেছে । সংগঠনের জয়েন্ট জেনারেল সেক্রেটারি বা সহ সরকার্যবাহ দত্তাত্রেয় হোসাবলে তার টুইটার ওয়ালে মিটু আন্দোলনের সমর্থনে পোস্ট করেছে। ভারত, দক্ষিণ এবং মধ্য এশিয়ার পাবলিক পলিসি ডিরেক্টর আঁখি দাস ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন। তাতে তিনি লেখেন, ‘‘যে সব মহিলা সাংবাদিক নিজেদের তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেছেন, তাঁদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য নিজে নির্যাতিতা হওয়ার দরকার নেই। মহিলা হতে হবে এমনও নয়। শুধু ঠিক-ভুল বিচার করার মতো একটা সংবেদনশীল মন দরকার।’’ এই পোস্টটির স্ক্রিন শট নিয়ে বৃহস্পতিবার টুইটারে দত্তাত্রেয় লিখেছেন, ‘‘আমি এটাকে সমর্থন করি। আমি যেটা বলতে চেয়েছিলাম, উনি সেটাই বলেছেন।’’ দত্তাত্রেয়-র এই পোস্টের পর মিটু আন্দোলন ও আকবর প্রসঙ্গে সঙ্ঘের অবস্থান মোটামুটি পরিষ্কার হয়ে যায় । সেইসাথে বিশেষজ্ঞ মহলও সঙ্ঘ পরিবারের এই মতামতে এম জে আকবরের উপরেও যথেষ্ট চাপ বাড়ল বলেই মত প্রকাশ করেছে ।। 
I liked it. She has articulated what I was feeling .. pic.twitter.com/2uQpYdmeQs

— Dattatreya Hosabale (@DattaHosabale) October 11, 2018

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]