নিউজ ডেস্ক কলকাতা ঃ-

৪০ তৃণমূল বিধায়ক যোগাযোগ রাখছেন বিজেপির সঙ্গে৷ প্রধানমন্ত্রীর এই দাবির জবাব দিলেন তৃণমূলের জাতীয় মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন৷ এদিন নিজের ট্যুইটারে মোদীকে ‘এক্সপায়ারি প্রধানমন্ত্রী বাবু’ বলে সম্বোধন করে ডেরেক লেখেন, এক্সপায়ারি প্রধানমন্ত্রী বাবু, আপনাকে সোজাসুজি বলছি। আপনার সাথে কেউ যাবে না। একজন কাউন্সিলরও নয়। বিজেপির পোস্টার বয়ের বিরুদ্ধে এদিন বিধায়ক কেনাবেচার অভিযোগ আনেন রাজ্যের শাসক দলের জাতীয় মুখপাত্র৷ ট্যুইটে এই বিষয়টিকেও তুলে ধরেন তিনি৷ লেখেন, আপনি ভোটের প্রচার করছেন, নাকি ঘোড়া কেনাবেচা? আপনার শেষের শুরু হয়ে গেছে। বাংলার রাজনীতিতে ঘোড়াকেনাবেচার অভিযোগ তুলে ডেরেক জানিয়েছেন তৃণমূল নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হবে৷ নালিশ জানানো হবে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে৷ এদিন শ্রীরামপুরের সভা থেকে তৃণমূল নেত্রীকে হুঁশিয়ারি দেন মোদী৷
জানান আগামী ২৩ মে-র পর রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের দুর্দিন আসতে চলেছে৷ একই সঙ্গে মোদীর ঘোষণা, ৪০ জন বিধায়ক তার সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছেন৷ কাঁটা দিয়ে কাটা তোলারমতই যে তৃণমূলের পথেই জোড়াফুল শিবিরকে দুর্বল করতে সচেষ্ট বিজেপি তা এদিন প্রধানমন্ত্রীর কথা থেকেই স্পষ্ট৷ অনুপম, সোমিত্র খাঁ থেকে অর্জুন সিং৷ তৃণমূল থেকে পদ্ম শিবিরে নাম লিখিয়েছেন৷ মুকুল রায়ের হাত ধরে৷ তালিকায় রয়েছে আরও৷ রাজনৈতিক মহলের বক্তব্য, নরেন্দ্র মোদীকে ভরসা জুগিয়েছেন মুকুল রায়৷ সেই পথেই তাই তৃণমূল বধের পরিকল্পনা মোদীর৷ ইতিমধ্যেই বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জানিয়ে দিয়েছেন বাংলা থেকে ২৩ আসন নূন্যতম লক্ষ্য তাদের৷

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]