নিউজ ডেস্ক, আগরতলাঃ- ত্রিপুরা মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার প্রশ্নে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ


ত্রিপুরা মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার প্রশ্নে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরুদ্ধে অবহেলার অভিযোগ উঠল, ভারতের সব মুখ্যমন্ত্রীরা জেড প্লাস নিরাপত্তা পান । পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর কর্ণাটকে মুখ্যমন্ত্রীর শপথ অনুষ্ঠানে যাবার পর, কিছুটা পথ হেঁটে আসতে হওয়ায়, তার কাছে অপদস্থ  হতে হয় আইপিএস অফিসারকে । সেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর সাম্রাজ্যে অবহেলিত অন্য একজন মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা । ঘটনাচক্রে জানা যায়, বিজেপির রথযাত্রায় যোগ দিতে বাংলায় আসার কথা ছিল ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর। ত্রিপুরার মুখ্যসচিব চিঠিতে জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর কোচবিহার সফরের কথা ৪ ডিসেম্বর প্রশাসন তরফে নিয়মমাফিক সেখানকার পুলিশ সুপার ও পশ্চিমবঙ্গের ডিরেক্টর সিকিউরিটিকে জানানো হয়। আগাম খবর দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সফর শুরুর আগের দিন অ্যাডভান্স সিকিউরিটি নিয়োগ করার জন্য ত্রিপুরা ডিএসপিকে (সিকিউরিটি) পাঠানো হয় কিন্তু কোচবিহার স্টেশনে পশ্চিমবঙ্গ প্রশাসনের পক্ষ থেকে কেউ তাঁকে নিতে আসেনি এমনকি ব্যবস্থাও করা হয়নি থাকার ।

এখানেই নয়, ত্রিপুরা ডিএসপি-র (সিকিউরিটি) মতন একজন পদাধিকারী অফিসারকে সারা রাত স্টেশনে কাটিয়ে, সকালে প্রাইভেট গাড়ি ভাড়া করে জেলা পুলিশ সুপারের অফিসে যেতে হয় । ত্রিপুরা সরকারের নিরাপত্তা অফিসার জানার পরেও সেখানে গিয়েও জোটেনি কোন সম্মান, দেখা পাননি জেলা পুলিশ সুপারের । পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারেন, বিজেপির রথযাত্রার বিষয়টি এখন আদালতের বিচারাধীন তাই কোচবিহার পুলিশ প্রশাসন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা সংক্রান্ত পরিকল্পনার কথা জানাবে না । এই চূড়ান্ত অপমানের পর ত্রিপুরার মুখ্যসচিব এলকে গুপ্তা রবিবার চিঠি দিয়ে রাজ্যের মুখ্যসচিব মলয় দের কাছে রীতিমত ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ক্ষোভের সুরে তিনি জানতে চান, ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেবের প্রস্তাবিত সফর উপলক্ষে নিরাপত্তার নিয়ম মেনে আগরতলা থেকে ডিএসপি (সিকিউরিটি) আগের দিন কোচবিহার পৌঁছলেও, তাঁর সঙ্গে কোনও সহযোগিতা করল না জেলা পুলিশ প্রশাসন ? সেইসাথে ভবিষ্যতে যেন এই ধরনের ঘটনা নতুন করে পুনরায় না ঘটে সেজন্যে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যসচিব মলয় দে-কে আর্জি জানিয়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যসচিব। 

প্রসঙ্গত, পশ্চিমবাংলায় গণতন্ত্র বাঁচাও কর্মসূচী নিয়ে রথযাত্রা কর্মসূচীর পরিকল্পনা নিয়েছিল বিজেপি, বর্তমানে আইনি জটিলতায় স্থগিত কর্মসূচী । যারফলে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সফরও সাময়িক ভাবে বাতিল রাখা হয়েছে, একই সঙ্গে ভিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের রথযাত্রায় যোগদানের কর্মসূচিও আপাতত বাতিল । কিন্তু তবুও যেন সমস্যা পিছু ছাড়ছে না পশ্চিমবঙ্গ সরকারের । পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরুদ্ধে নিরাপত্তার প্রশ্নে অসহযোগিতার অভিযোগ নিয়ে ত্রিপুরা সরকারের পক্ষ থেকে আসা চিঠি আবারও চরম অসবস্তিতে ফেলে দিল পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে , সেইসাথে উঠে এল জেড প্লাস নিরাপত্তা পাপক একজন মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন । বিশেষজ্ঞদের মতে, পশ্চিমবঙ্গের সব কিছুতেই এখন রাজনৈতিক রঙ ছাড়া আর কিছুই দেখা হচ্ছে না, তাই হয়ত মেডাম ভুলে গেছেন রাজনৈতিক পেক্ষাপটে বিপ্লব দেবের রঙ আলাদা হলেও তিনি কিন্তু ভারতের একজন মুখ্যমন্ত্রী । সূত্রের খবর অনুসারে, যদিও এই বিষয়ে রাজ্যের মুখ্যসচিব মলয় ঘটকের কাছে জানতে চাওয়া হলে এখনও পর্যন্ত কোন উত্তর পাওয়া যায়নি । 

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]