নিউজ ডেস্ক, কলকাতাঃ- তৃণমূল যে রাজ্যের মুসলিমদের রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করছে, তা আবার প্রমান করে দিয়ে ফুরফুরা শরীফের পীরযাদা আব্বাস সিদ্দিকী বললেন “মাদ্রাসার মৃত্যু মানে তৃণমূল পার্টিরও মৃত্যু”

রাজ্যের একাংশ মুসলিম বিশেষজ্ঞরা যখন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায়ের অতিরিক্ত মুসলিম পিরীতিকে বিপদ সঙ্কেত হিসাবে বর্ণনা করছিলেন , যখন টিপুসুলতান মসজিদের প্রাক্তন ইমাম বরকতি প্রকাশ্যে সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলছেন, টাকা দিলে বিজেপি-কে পশ্চিমবঙ্গে মুসলিম ভোট পাইয়ে দেবে, ঠিক তখনই হুগলী ফুরফুরা দরবার শরীফের পীরযাদা আব্বাস সিদ্দিকী আল কোরায়েসির বক্তব্য প্রমান করে দিল যে, পশ্চিমবঙ্গে আসলে মুসলিম তোষণের নামে ভোট ব্যাঙ্কের রাজনীতি ও নিজেদের পকেট ভরানোর খেলা চালাচ্ছে শাসকদলের বড় বড় মুসলিম নেতারা ।  

বুধবার একটি সাংবাদিক সন্মেলনে আব্বাস সিদ্দিকী বলেন হুগলি মাদ্রাসা বন্ধ হলে তৃণমূল পার্টিরও মৃত্যু হবে। তৃণমূল দল তাদের পার্টি বাঁচাতে চাইলে মাদ্রাসা খুলে দিক। মাদ্রাসা না খুললে হয় আমার মৃত্যু ঘটবে, নাহয় তৃণমূল দলের মৃত্যু ঘটবে। এদিনের সন্মেলনে সিদ্দিকী বলেন হুগলি মাদ্রাসার বয়স প্রায় ২০২ বছর , দেশে ও বিদেশে থেকে অনেকে এখানে পড়াশুনা করতে আসে কিন্তু বর্তমানে শাষক দলের কিছু নেতা চক্রান্ত করে এই মাদ্রসা বন্ধ করতে চাইছেন কারন মাদ্রাসা বন্ধ করতে পাড়লেই মুখোশধারী জমি মাফিয়ারা এটাকে গিলে খাবে । শরীফের পীরযাদা তোহা সিদ্দিকীকে আক্রমন করে আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, আমাদের মধ্যে কিছু মানুষ আছেন যারা সরকারের তোষামদ করতে গিয়ে সত্যকে খুন করছে , আমরা তা হতে দেবনা তাই তৃণমূল দলের ভালো চাইলে মাদ্রাসা খুলে দিন নাহলে নিজেদের মৌলিক অধিকারের জন্য বৃহত্তর আন্দোলনে নামতেও পিছপা হবনা ।   


এখানেই থেমে থাকেননি ফুরফুরা শরীফের পীরযাদা আব্বাস সিদ্দিকী, তিনি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ইমাম ভাতা নিয়ে তীব্র কটাক্ষ করে জানান, এটা কোন ভাতা নয়, টাকা ও ক্ষমতার লোভ দেখিয়ে একশ্রেণীর মুসলিমদের কিনে নিচ্ছে রাজ্য সরকার । ফলে পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী ৪ কোটি মুসলিম প্রতারিত হচ্ছে । সেইসাথে সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী, ইদ্রিশ আলি, ফিরহাদ হাকিম(ববি হাকিম), ইমরান-কে একহাত নিয়ে সিদ্দিকী বলেন রাজ্য সরকার যদি ভাবে এদের মত লোকের হাতে নেতৃত্ব দিয়ে পুরো মুসলিম সমাজকে কিনে নিয়েছে, তবে সেটা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায়ের চরম ভুল । 

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]