নিউজ ডেস্ক, বিশেষ প্রতিবেদনঃ- মাত্র ১৪ দিনেই ভারত হারাবে ইসলামিক সেনাজোট বদ্ধ দেশগুলিকে ।। 

বিগত বছরেই সারা বিশ্বের কিছু ইসলামিক রাষ্ট্র একত্রে ইসলামিক সেনা তৈরির সিধান্ত নিয়েছিল, যদিও এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেনি কিছু সিয়া মুসলিম দেশ । ইসলামিক সেনা সংগঠন তৈরির কারন হিসাবে জানা যায়, যে যুদ্ধ পরিস্থিতিতে সকল ইসলামিক দেশ একত্রে লড়াই করবে , কোনো একটা ইসলামিক দেশে আক্রমন হলে তা সকল ইসলামিক দেশের উপর আক্রমণ বলে গণ্য করা হবে এবং এই যুদ্ধকালীন পরিস্থিতে ইসলামিক সেনা একজোট হয়ে লড়াই করবে বিরোধীদের সাথে । জানা যায় ইতিমধ্যে নাকি এই ইসলামিক সেনার হেড কোয়াটারও স্থাপন করা হয়ে গেছে সৌদি আরবে আর এই ইসলামিক সেনার প্রধান পদে পাকিস্থানি সেনার প্রমুখ জেনারেল রহিল শরীফকে নাম প্রস্তাব করা হয়েছে । এরপর থেকেই ভারতকে ভয় দেখাতে থাকে পাকিস্থান । 

এই খবর সামনে আসতেই, এর গুরুত্ব সম্পূর্ণ ঘটনার বিশ্লেষণ শুরু করে দেয় সেন্ট্রাল ইন্টিলিজেন্স এজেন্সি অফ আমেরিকা (CIA) । সেন্ট্রাল ইন্টিলিজেন্স এজেন্সি অফ আমেরিকা-র এই তদন্তে উঠে আসে বিশ্বকে অবাক করা তথ্য । CIA এর রিপোর্টে বলা হয় সকল ইসলামিক দেশ একত্র হয়েও ভারতের সামনে টিকতে পারবে না। মাত্র ১৪ দিনেই ভারত হারাবে ইসলামিক সেনাজোট বদ্ধ দেশগুলিকে । আর এই রিপোর্ট সামনে আসতেই ঘুম উড়েছে পাকিস্থান সহ ইসলামিক সেনাজোট বদ্ধ দেশগুলির । 

ভারতের শক্তিকে যেই কারনে ইসলামিক দেশ গুলির থেকে বেশি দেখান হয়েছে সেগুলি হলঃ- 

১. ভারতের অস্ত্র ও সৈন্য , কারন ভারতের কাছে ১৬.৮২ লক্ষ সৈন্য রয়েছে ও ১১.৩১ লক্ষ রিজার্ভ সৈনিক রয়েছে , যেখানে ইসলামিক দেশগুলির মোট সৈনিক সংখ্যা ১৯.৬২ লক্ষ প্রায় । তাই সেনা ক্ষমতার দিক দিয়ে ভারত  অনেকটাই এগিয়ে । এছাড়াও ভারতের স্পেশাল বাহিনী যে কোন পরিস্থিতে, যে কোন জায়গায় লড়াই করতে সক্ষম ।  
২.  আমেরিকা, চীন, ইসরায়েল পর ভারত বিশ্বের চতুর্থ এমন দেশ যার কাছে মিসাইলকে বায়ুমণ্ডলেই নষ্ট করে দেওয়ার শক্তি রয়েছে কিন্তু কোনো ইসলামিক দেশের কাছে আন্টি ব্যালাস্টিক মিসাইল নেই । 
৩. ভারতের কাছে ৩২,০০০ কিমি মারক শক্তি সম্পন্ন মিসাইল রয়েছে কিন্তু কোনো ইসলামিক দেশের কাছে ৭০০০ কিমির বেশি মারক শক্তি সম্পন্ন মিসাইল নেই । 
৪. ভারতের কাছে ব্রহ্মসের মতো ভয়াবহ সুপারসনিক মিসাইল রয়েছে কিন্তু কোনো ইসলামিক দেশের কাছে সুপারসনিক মিসাইল নেই । 
৫. ভারত হল পরমাণু শক্তিসম্পন্ন দেশ, ওপর দিকে পাকিস্থান ছাড়া আর কোনো মুসলিম দেশ পরমাণু শক্তিসম্পন্ন নয়।
৬. ভারতের জনসংখ্যা । বিশ্বে 56 টি মুসলিম বহুল কট্টরপন্থী ইসলামিক দেশ রয়েছে যাদের মোট জনসংখ্যা ১৬২ কোটি কিন্তু ইসলামিক দেশের সংখ্যা বেশি হলেও ভারতের সামনে এই দেশগুলি এখনো তুচ্ছ। কারন বিশ্বের কিছু    মুসলিম দেশ এতটাই ছোট যে সেই দেশের থেকে ভারতের গোয়া রাজ্যে বড়ো। এছাড়াও বেশিরভাগ ইসলামিক দেশ মহামারির ও নানান ধরনের রোগের কারণে জরাজীর্ণ অবস্থায় রয়েছে।
৭. বিশ্বের মোটামুটি সমস্ত ইসলামিক দেশ গুলির সাথেই শত্রুতা রয়েছে আমেরিকা, রাশিয়া সহ বিশ্বের তাবড় তাবড় শক্তিধর দেশগুলির । তাই যদি কোন কারনে ইসলামিক জোটবদ্ধ দেশগুলি ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে তবে, ইসলাম বিরোধী দেশগুলির সাথে ভারতের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক হওয়ার, সেই দেশগুলির পূর্ণ সহযোগিতা ভারত পাবে ।  


মুলত এই সমস্ত কারনেই সেন্ট্রাল ইন্টিলিজেন্স এজেন্সি অফ আমেরিকার দেওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী যদি সমস্থ ইসলামিক দেশ আতঙ্কবাদীদের সাথে এক হয়ে ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে তাহলেও মাত্র ১৪ দিনেই ভারত ইসলামিক দেশকে হারিয়ে দেবে । সম্প্রতি কিছু বছরে ভারতের কাছে অত্যাধুনিক অস্ত্র আসায় সামরিক শক্তি ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই ইসলামিক সেনা নিয়ে ভারতবাসীর চিন্তার কোনো বিশেষ কারণ নেই।      

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]