বিশ্বে ফের নয়া দাপট শুরু হয়েছে করোনার। নির্মূল তো দূর, নয়া আক্রমণে তটস্থ বিভিন্ন দেশ। ভ্যাকসিনে ভরসা রেখেই জারি রয়েছে ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই। সেই আবহেই অস্ট্রেলিয়ান বিশ্ববিদ্যালয় এবং সিএসএল লিমিটেডের যৌথ উদ্যোগে একটি কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রস্তুত করল।

শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী গ্রেগ হান্ট জানান এই নয়া ভ্যাকসিনের পরীক্ষার পর দেখা গিয়েছে এটি একদম নিরাপদ এবং সফলভাবে মানবদেহে অ্যান্টিবডি তৈরি করতে পারছে। এখন এমন এক সময় যখন সারা বিশ্বজুড়েই ওষুধপ্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি ঝাঁপিয়ে পড়েছে কোভিড প্রতিরোধক তৈরি করতে। যেমন আমেরিকার ফাইজার ভ্যাকসিনের পর বড় সাফল্যর মুখ দেখল রাশিয়ার ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি। কোভিড -১৯ থেকে মানুষকে সুরক্ষিত করতে ৯২ শতাংশ কার্যকর এই ভ্যাকসিন এমনটাই জানান হয়েছে রাশিয়ার তরফে।

অন্যদিকে, পিছিয়ে নেই ভারতও। দেশের শীর্ষস্থানীয় সংস্থা সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া এবং ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর) যৌথভাবে কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের শেষ ট্রায়ালে অংশগ্রহণকারীদের টিকা দেওয়ার অনুমোদন পেল। এসআইআই ইতিমধ্যে ডিসিজিআইয়ের অনুমোদন নিয়ে ভ্যাকসিনের ৪০ মিলিয়ন ডোজ তৈরি করেছে, সংস্থার তরফে বিবৃতি প্রকাশ করে এমনটাই জানান হয়েছে। বর্তমানে, এসআইআই এবং আইসিএমআর সারা দেশে ১৫ টি কেন্দ্রে কোভিডশিল্ডের ক্লিনিকাল ট্রায়াল পরিচালনা করছে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]