নিউজ ডেস্ক, দিল্লী :-ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী  দেশকে বিকাশের পথে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য পুরো জোর কদমে কাজ করে চলছেন । একটা দেশ কতটা উন্নত হবে তা অনেকটা নির্ভর করে সেই দেশের অভ্যন্তরীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা ও পার্শ্ববর্তী দেশের সাথে পরিবহনের ব্যাবস্থার উপর। এমনকি আজ আমেরিকা  তার সড়ক ব্যাবস্থার উপরে ভিত্তি করেই সুপার পাওয়ারে পরিনত হয়েছে। ভারত সরকার দেশের ভেতরের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা উপরে কাজ করার পাশাপাশি এবার পার্শবর্তী দেশের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থার উপর গুরুত্ব দিতে শুরু করেছে। কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকার তিনটি দেশের সাথে সড়ক পথে জুড়ে যাওয়ার জন্য হাইওয়ে তৈরি করতে চলেছে। এর জন্য ভারত সরকার ১৮৩০.৮৭ কোটি টাকার মঞ্জুরি দিয়ে দিয়েছে। এই হাইওয়ে প্রজেক্ট তৈরি করা হবে তিনটি ভাগে । এই সড়কের দুই ভাগ নির্মাণের জন্য ভারত সরকার মায়ানমার সরকারকে আর্থিক সাহায্য করবে। এর জন্য প্রথম ধাপে ভারতের তরফ থেকে বরাদ্ধ করা হয়েছে  ১৯৩.১৬ কোটি টাকা  ।
 কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মানসুখ লাল মান্ডভে সম্প্রতি এই ইস্যুতে সাংসদে বক্তব্যও রেখেছেন। ভারত, মায়ানমার ও থাইল্যান্ড এই তিন দেশ মিলিত ভাবে  এই ১৩৬০ কিমি লম্বা হাইওয়ে  নির্মাণ করবে। এই হাইওয়ের দুই ভাগ নির্মাণ করবে ভারত । হাইওয়ের কেলভা-যানগি সেকশন এর নির্মাণের জন্য ভারত সরকার এখন পর্যন্ত ১৯৩.১৬ কোটি টাকার মঞ্জুরি দিয়েছে । এই সেকশনে ১২০.৭৪ কিমি সড়ক নির্মিত হবে, যার মধ্যে ৬৯ টি ব্রিজের নির্মাণ সম্পন্ন করা হবে।
এছাড়াও ১৪৯.৭০ কিমি লম্বা তামো কিয়ং কলভা ভারত নির্মাণ করবে। এই দুই সেকশন এর নির্মাণের জন্য মায়ানমার সরকারকে ভারত সরকার  আর্থিক সাহায্য করবে। এই হাইওয়ে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হলে ভারত বড়সড়ো লাভ উঠাতে সক্ষম হবে। কারণ এই প্রজেক্ট সম্পুর্ন হলে চীনের উত্তরুত্তর  বৃদ্ধি পাওয়া প্রভাবকে কমানোর পাশাপাশি  বাণিজ্যিক ক্ষেত্রেও ভারত লাভবান হবে। এতকাল ধরে থাইল্যান্ড এবং মায়ানমারের বাজার দখল করে রেখেছে চীন, সড়ক পথে ভারতের সাথে এই দেশ গুলি জুড়ে যাওয়ার ফলে এবার ভারত সেই বাজারে চীনকে টক্কর দিতে সক্ষম হবে। দীর্ঘকাল থেকে চীন থাইল্যান্ড,মায়ানমার এবং বাংলাদেশের মাধ্যমে ভারতকে ঘিরে রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছে।  চীনের ক্রমাগত বাড়তে থাকা প্রভাবকে নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষেত্রে ভারতের এই প্রজেক্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ ।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]