নিউজ ডেস্ক, লখনউ – ভারতে বসবাসকারী যারা ‘ভারত মাতা কি জয়’ , ‘বন্দে মাতরম’ বলতেন না , এমনকি অবমাননা করতেন জাতীয় সঙ্গীতেরও । এবার এর বিরুদ্ধে কড়া আইন আনতে চলেছে উত্তরপ্রদেশের ওয়াকফ বোর্ড । 


শনিবার উত্তরপ্রদেশ ওয়াকফ বোর্ডের পক্ষ থেকে একটি নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছে, ওয়াকফ বোর্ডের সম্পত্তির উপর হওয়া স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে অর্থাৎ ১৫ অগস্ট ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলা বাধ্যতামূলক৷ জাতীয় সঙ্গীতের পরই বলতে হবে ‘ভারত মাতা কি জয়’৷ সেই সাথে আরও বলা হয়েছে নির্দেশ না মানলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷

প্রসঙ্গত ভারতে বসবাসকারী একাংশ মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষেরা ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলতেন না , এমনকি অবমাননা করতেন জাতীয় সঙ্গীতেরও যার ফলে  একাংশ মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষদের জন্য দেশের কাছে ভাবমূর্তি খারাপ হচ্ছিল ভারতীয় মুসলিমদের তাই এই বিশেষ আইন আনা হচ্ছে বলে জানান শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যাম ওয়াসিম রিজভি ।

তিনি আরও জানিয়েছেন এই বিষয়ে নজর রাখার জন্য একটি ম্যানেজিং কমিটিও গঠন করা হয়েছে , কমিটির দায়িত্ব হল বোর্ডের নির্দেশ ঠিক মতো মানা হচ্ছে কিনা সেটার ওপর নজর রাখা ৷ যে বা যারা  এই নির্দেশ মানবে না তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷তিনি আরও বলেন , ভারতকে ‘মাদরে ওতন’(মাতৃভূমি) বলতে কোনও আপত্তি নেই মুসলিমদের৷ আর ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলার বিরোধীতা করার মধ্যে যৌক্তিকতা নেই, কারন তারা প্রতেকেই ভারতীয় । ভারতীয় হয়ে ভারত ভূমিকে যথার্থ সন্মান দেওয়া জাতি ধর্ম নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষেরই কর্তব্য ।


এর আগেও গো-হত্যা বন্ধ করা নিয়ে সরব হয়েছিলেন শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যাম ওয়াসিম রিজভি , তিনি বলেছিলেন অন্য ধর্মের ভাবাবেগকে আঘাত করে মুসলিমদের গরুর মাংস খাওয়া বন্ধ করা উচিত । গোরুর মাংসকে ইসলামে হারাম বলা হয়েছে তাই অবিলম্বে গো-হত্যা বন্ধ করা উচিত । 

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]