নিউজ ডেস্ক :- কেরলের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে যখন সরগরম রাজ্য রাজনীতি থেকে শুরু করে জাতীয় রাজনীতি যখন প্রশ্ন উঠছে প্রধানমন্ত্রীর 500 কোটি টাকা ত্রাণ তহবিলে অনুদান দেওয়ার কারণ নিয়ে সেই সময় কর্নাটকের এক মন্ত্রীকে পাওয়া গেল ভিন্ন চরিত্রে ।


কর্ণাটক সরকারের মন্ত্রী রেভান্না , যার পরিচয় শুধু কর্ণাটক সরকারের মন্ত্রী না কর্ণাটক মুখ্যমন্ত্রী কুমারাস্বামীর ভাই । কেরল এই মুহূর্তে যে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি তার কিছুটা আঁচ এসে পড়েছে পার্শ্ববর্তী রাজ্য কর্ণাটক ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে ভারী বর্ষণ যার ফলে জলের তোড়ে ভেসে গেছে অনেক গ্রাম । ইতিমধ্যে বন্যার জলে কেলেগুতে ৬ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে সেই সাথে বন্যা কবলিত এলাকা থেকে প্রায় সাড়ে তিন হাজার মানুষকে উদ্ধার করা হয়েছে। কর্নাটকের ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির কাছে সাহায্য চেয়ে আবেদন করেছেন কিন্তু তার মধ্যেই এমন একটি ঘটনা সকলকে সকলের সামনে সরকারের মানবিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিল ।

ভিডিও দেখার জন্য নিছে দেওয়া লিঙ্কে ক্লিক করুন 

We as citizens of Karnataka had to stand in solidarity with victims of flood disaster & show compassion,! but look how district incharge minister of Hassan Mr Revanna throws biscuits at the victims displaying sheer arrogance. He needs to first learn to respect human sentiments. pic.twitter.com/KkNmDtJnHK

— Balaji Srinivas (@BuzzInBengaluru) August 20, 2018


 আজ কর্নাটকের বন্যা কবলিত এলাকায় ত্রাণ সামগ্রী বিলি করতে গিয়ে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়লেন তিনি । বালাজি শ্রীনিবাসন নামক এক ব্যক্তির একটি ভিডিও টুইটারে প্রকাশ পাওয়ার পর থেকেই প্রবল সমালোচনা ও ক্ষোভের মুখে পড়েন রেভান্না ।

ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে ত্রাণ সামগ্রী বিলি করতে গিয়ে বন্যা দুর্গতদের খাবার ছুড়ে ছুড়ে দিচ্ছেন মন্ত্রী । আর এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ পাওয়ার পর থেকেই শুরু হয় সমালোচনা । প্রশ্ন উঠেছে তিনি কি আদৌ ত্রাণ সামগ্রী বিলি করতে গেছিলেন নাকি নিজেকে জাহির করতে গিয়েছিলেন কারণ বন্যাদুর্গতদের প্রতি সামান্য সহানুভূতিশীলতা ও তার মধ্যে দেখা যায়নি । যে ঔদ্ধত্যের সাথে তিনি বন্যা দুর্গতদের খাবারের প্যাকেট করে দিচ্ছিলেন তা দেখে তার মানসিকতা, মানবিকতা ও সহানুভূতিশীলতা নিয়ে প্রশ্ন করতে শুরু করেছেন আপামর ভারতবাসী । 

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]