নিউজ ডেস্ক,নয়া দিল্লীঃ-

ফের সার্জিক্যাল স্ট্রাইক। পুলওয়ামার জঙ্গি হামলার বদলা নেওয়া শুরু করল ভারতীয় সেনা।চৌদ্দ ফেব্রুয়ারি জৈইশ জঙ্গি আদিল আহমেদ দর পুলওয়ামায় সিআরপিএফ জওয়ানদের কনভয়ের উপরে হামলা চালায়। আত্মঘাতী জঙ্গি আদিলের আক্রমণে প্রাণ হারান চল্লিশ জন সিআরপিএফ জওয়ান।এই আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার পর শোকে বিহব্বল ছিল গোটা দেশ,বদলার আগুনে জ্বলছিল সারা ভারত।তখন থেকেই বদলা নেওয়ার দাবি ওঠে সারা দেশে।পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটার পর থেকেই বিষয়টি নিয়ে শুরু হয় রাজনৈতিক চাপানউতোরএর,বার বার প্রশ্ন উঠছিল কেন বদলা নেওয়া হচ্ছে না।লোকসভা নির্বাচনের ঠিক আগে যুদ্ধের সুরসুঁড়ি দিয়ে আদতে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা হচ্ছে বলে সরকারের বিরুদ্ধে সুর চরায় বিরুধীরা।বিভিন্ন সংবাদ সূত্র থেকে জানানো হয়েছে যে মঙ্গলবার ভোর রাতে নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতীয় বায়ু সেনা পাক অধিকৃত কাশ্মীরের জঙ্গি ঘাঁটিতে হামলা চালিয়েছে।এদিন ভোর ৩.৩০ মিনিট নাগাদ ভারতীয় যুদ্ধবিমান মিরাজ ২০০০-এর সাহায্যে এই হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা।ভারতীয় বায়ুসেনা মুজফফরাবাদ সেক্টরের সমস্ত জঙ্গি ঘাঁটি সম্পূর্ণ ভাবে গুঁড়িয়ে দিয়েছে এবং মোট ১০০০ কেজি বোমা বর্ষণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।পাক মদতপুষ্ঠ জঙ্গিরা গত ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে জম্মু-কাশ্মিরের উরি সেনা ছাউনিতে হামলা চালায়।সেইহামলা ১০ দিনের মাথায় পাক অধিকৃত কাশ্মীরের জঙ্গি ঘাঁটিগুলিতে হামলা চালিয়েছিল ভারতীয় সেনা।সেই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে পাল্টা প্রশ্ন তুলেছিল বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি, উল্টে বিরোধী দলগুলি সরকারের দাবি নিয়েই তৈরি করে রাজনৈতিক বিতর্কের।পুলওয়ামা হামলার পরে কেন সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করা হচ্ছে না তা নিয়েও প্রশ্ন তুলতে শুরু করে বিরোধী দলগুলি।প্রশ্নের মুখে পরে কেন্দ্রীয় সরকার। সরাসরি প্রধানমন্ত্রী এবং মন্ত্রীসভার ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়। তবে পাল্টা জবাবের কথা প্রথম থেকেই বলে আসছিলেন পিএম মোদী।বিরোধী দলগুলি যাবতীয় প্রশ্নের অবসান ঘটিয়ে দিল ভারতের বায়ু সেনা।নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ঢুঁকে জঙ্গিদের একাধিক ঘাঁটি ধ্বংস করে দিল ভারতীয় বায়ুসেনা।পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার বার দিনের মাথায় বারটি  মিরাজ ২০০০ যুদ্ধবিমান প্রত্যাঘাত করল শত্রু শিবিরকে।মঙ্গলবারের এই প্রত্যাঘাত নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে সারা বিশ্বে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]