নিউজ ডেস্ক, নিউ দিল্লিঃ – সন্ত্রাসবাদ দমনে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে পাক সরকারের সমস্ত অর্থসাহায্য বন্ধ করল আমেরিকা ।  দেশের প্রধানমন্ত্রীর পদের দায়িত্ব পেতে না পেতেই বড়সড় ধাক্কা খেলেন ইমরান খান । 


সূত্রের খবর অনুসারে সন্ত্রাসবাদ দমনে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যে যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন পূর্বতন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা , সেই ধারাকে অব্যাহত রেখে প্রেসিডেন্ট আসনে বসার পর পাকিস্তানের উপর আরও চাপ বাড়িয়েছেন বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্প ৷ চলতি বছরের শুরুতেই পাকিস্তানকে একটি চিঠি লিখে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন গত ১৫ বছর ধরে পাকিস্তানকে টাকা দিয়ে যাচ্ছে আমেরিকা ৷ কিন্তু সন্ত্রাসবাদ দমনে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে পাক সরকার তাই পাকিস্তানকে আর্থিক সাহায্য বন্ধ করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন সেনা আর তাতেই এবার অফিসিয়ালি সিলমোহর দেওয়ার অপেক্ষায় ট্রাম্প প্রশাসন । 

প্রসঙ্গত বলতে হয় পাকিস্তান হল জঙ্গিদের এক ও অন্যবদ্য নিরাপদ ঘাঁটি ও স্বর্গরাজ্য এই অভিযোগ অবশ্য আন্তর্জাতিক মহলের আর তার জেরেই আন্তর্জাতিক মহলে ক্রমশ কোণঠাসা হয়ে উঠছে পাকিস্তান ৷ জঙ্গি দমনে পাকিস্তানকে অনেকবার পদক্ষেপ নেওয়ার আর্জি জানিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন মার্কিন প্রশাসন সহ রাজ্যের শক্তিধর দেশগুলি কিন্তু সেই সমস্ত আর্জিকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়ে সন্ত্রাসবাদ জারি রেখেছে পাকিস্তান ৷ তাই পাকিস্থানের দ্বায়িত্বে ইমরান খান আসার পর থেকেই সন্ত্রাসবাদ কার্যকলাপ আরও বেশি হওয়ার আশঙ্কায়, পাকিস্তানকে আর্থিক সাহায্য বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন প্রশাসন ৷ পাকিস্তানের অর্থনীতির একটি বড় অংশ আমেরিকার অর্থের ওপর নির্ভরশীল কিন্তু বারবার অনুরোধ সত্বেও সন্ত্রাসবাদ দমনে পাকিস্তান যথাযথ পদক্ষেপ না নেওয়ায় সেইসাথে দক্ষিণ এশিয়া নীতির পাশে না থাকার কারণে পাকিস্তানকে আর্থিক সাহায্য বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমেরিকা বলে জানা যায় । 

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]