নিউজ ডেস্ক, কলকাতাঃ- কোথায় ২৫ আর কোথায় মাত্র ৭ !!! পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের ।

এই মুহূর্তে নিজ কর্মসূচিতে যোগদানের জন্য ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব রয়েছেন কলকাতায় । সেখানেই সল্টলেকের ত্রিপুরা ভবনে বসে এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বিরোধী এবং পশ্চিমবঙ্গের তৃনমূলের বিরুদ্ধে হাঁকালেন একের পর এক ছক্কা । উক্ত সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী কলকাতায় বসে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাসরি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে বিপ্লব বাবু বললেন “কোথায় ২৫ আর কোথায় মাত্র ৭” ত্রিপুরায় ২৫ বছরের বামফ্রন্ট সরকার উরে গেল আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়তো মোটে ৭ ।   

গত কয়েক মাসে ত্রিপুরায় বিপ্লব দেব নূতন সরকার চালাতে গিয়ে সম্মুখিন হয়েছেন অনেক বিতর্কের, আজ সেই সম্বন্ধে নানা প্রশ্নের ইয়রকার দেওয়া হলেও জবাব কিন্তু দিলেন অলরাউন্ডারের ভুমিকায় । তার মন্তব্য গুলি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, বিতর্কিত বিষয় সৃষ্টি করেছে মিডিয়া, প্রকাশও করা হয়েছে ঘটা করে । এরদ্বারা প্রমান হয় যে, পশ্চিমবঙ্গের মত ত্রিপুরায় মিডিয়ার কণ্ঠরোধ করা হয় না ।  বামেদের পার্টি অফিস ভাঙা এবং লেনিনের মূর্তি ভাঙা প্রসঙ্গে বিপ্লব বাবুর সোজা সাপ্টা জবাব । বিজেপি দলতো কিছু ভাঙ্গে নি, সবগুলিই সরকারি জায়গা বেআইনি ভাবে জবরদখল করে তৈরি করেছিল সিপিএম, তাই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে আমি প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছি, সরকারি জমি দখলমুক্ত করতে এবং প্রশাসন তাই করেছে । দেখে আসুন, সরকারি জায়গায় তৈরি নয় এমন এখনও প্রায় আট-নশো সিপিএমের পার্টি অফিস রয়েছে ত্রিপুরায় ।    

এরপর ত্রিপুরায় পুনরায় ৫বছর পর সিপিএমের শাসন ফিরে আসবে বলে যে রব উঠেছে তার প্রসঙ্গে বিপ্লব বাবু জানান, সিপিএম এর মাটির নিচে ভীত বলতে এখন আর কিছু নেই, নিচু তলার প্রায় প্রতিটা কর্মীই এখন বিজেপিতে যোগদান করেছে । শুধু তাই নয়, নিচু তলার প্রতিটা কর্মী এবং ভোটারদের দ্বায়িত্বে আছেন আমাদের একজন করে পৃষ্ঠা প্রমুখ । আমরা ভোটার লিস্টের প্রত্যেকটা পাতা ধরে ইউনিট বানিয়েছি তাই যে-কেউই দলে আসুক, অথবা যে দল থেকেই আসুক না কেন, প্রত্যেককে দলের কাঠামো অনুযায়ী কাজ করতে হয়। যারফলে দলে এসেই কেউ নেতা হয়ে যেতেও পারবে না আবার সম্ভবানা থাকবে না কোন গোষ্ঠীদ্বন্দ্বেরও । 

আলোচনা চলাকালীন বাংলায় বিজেপির উত্থান প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে, কৌশলে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী  বললেন ত্রিপুরা তো ছোট রাজ্য সেখান থেকেই যখন ২৫ বছরের পাহাড়কে উপড়ে ফেলা সম্ভভ হয়েছে তখন মনযোগ দিয়ে কাজ করলে এখানাকার ৭ বছরের সাম্রাজ্যকে ভাঙাও অসম্ভব কিছুই নয় । গুন্ডাগিরি আর গায়েরজোড় খাটিয়ে সাম্রাজ্যে টিকে থাকার চিন্তাধারা এখন অতীত হয়ে গিয়েছে, মানুষ এখন নিজের ভাল নিজেই বুঝতে পারে ।  

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]