নিউজ ডেস্ক, কলকাতাঃ – দেশের মাটিতে মান সম্মান বাঁচাতে দিদির সানিধ্যে আসলেও, বিদেশের মাটিতে কি করবেন ??

প্রতীকী চিত্র
হ্যাঁ, ঠিকই ভাবছেন, ইনি আর কেও নন, সম্প্রতি বামফ্রন্ট থেকে তৃনমূলে যোগদানকারী নেতা ঋতব্রত বন্ধ্যোপাধ্যায় । সিপিএমের এই সাংসদ ঋতব্রত বন্ধ্যোপাধ্যায় সম্প্রতি তৃনমূলে যোগদান করেছেন, সেইসাথে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায় তাকে উপজাতি উন্নয়ন পর্ষদের আহ্বায়ক করেছেন । কিন্তু কেন হঠাৎ করে তৃনমূলে আসা ! সে নিয়ে অবশ্য সকল জিজ্ঞাস্যের উত্তর এখনও পায়নি পশ্চিমবঙ্গবাসী । তবে বিশেষজ্ঞদের মতে সাংসদ থাকা কালীন নম্রতা নামক একটি মেয়ের সাথে অবৈধ সম্পর্কের কথা সামনে আসা ও তার সাথে আপত্তিকর কিছু ছবি ও ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়ে পড়ায় আইনি জটিলতা থেকে নিজেকে বাচাতেই শাসকদলের সানিধ্যে এসেছেন তিনি । 

ঘটনাটি একবার ছোট করে জেনে নেওয়া যাক, কিছুদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি মেয়ের সাথে ছবি দেখা যায় তৎকালীন সিপিএম সাংসদ ঋতব্রত বন্ধ্যোপাধ্যায়ের , সাথে লেখা ছিল তিনি নাকি নেদারল্যান্ড-এ স্ত্রীর সাথে ছুটি কাটাচ্ছেন । কিন্তু এই ছবি ছড়িয়ে পড়তেই হইচই পড়ে যায় রাজ্য রাজনীতিতে, কারন প্রকাশিত হওয়া ছবিটি সম্পূর্ণ ভানে শালীনতায় পূর্ণ ছিলনা । এরপর সামনে আসে আসল ঘটনা । ছবিটিতে যেই মেয়েটাকে দেখা যায়, তার নাম নম্রতা দত্ত । তিনি দাবী করেন এটা নেদারল্যান্ডের ছবি নয় , এটা দিল্লীর ছবি । বিবাহের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তার সাথে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেছিল ঋতব্রত , ১ ঘণ্টায় প্রায় ১৯ বার যৌন সম্পর্ক হয়েছিল তাদের মধ্যে । এই ছবিটি সেদিনের তাদের ভালবাসার টুকরো একটি স্মৃতি মাত্র । 

কিন্তু ঘটনা সামনাসামনি আসে ২০১৭ সালে, যখন তৎকালীন সিপিএম সাংসদ ঋতব্রত বন্ধ্যোপাধ্যায় নম্রতাকে বিয়ে না করে অন্যত্র বিবাহ করেন । এরপরই ঋতব্রতর বিরুদ্ধে দিল্লী ও বালুরঘাট থানায় বিবাহের প্রতিশ্রুতি দিয়ে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের জন্য অভিযোগ দায়ের করে নম্রতা । ঘটনার তদন্তে নামে সিআইডি , পরে অবস্থা বেগতিক বুঝে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেয় ঋতব্রত বন্ধ্যোপাধ্যায় । কিন্তু তারপর তদন্ত আর এগোয়নি, নম্রতা দাবী করতে থাকে শীঘ্রই নাকি তৃনমূলে যোগ দিতে চলেছেন ঋতব্রত বন্ধ্যোপাধ্যায়, আর তাই শাসকদলের তরফে তদন্তে ঢিলেমি করা হছে । আশঙ্কা অবশ্য সত্যি প্রমানিত হয়, কিছুদিনের মধ্যে কমিউনিস্ট মতাদর্শ ছেড়ে ঘাসফুলের বাগানে ঝাপ দেন ঋতব্রত । সাথে সাথে সকলের কাছে সমস্ত ঘটনাও পরিষ্কার হয়ে যায়।

কিন্তু এসবের পরেও থেমে থাকেনি নম্রতা । সে বুঝতে পারে ঋতব্রত এখন তৃণমূলের সদস্য, তাই সঠিক বিচার সে আর পাবে না । সেইকারনে চলতি বছরের আগস্ট মাসে নেদারল্যান্ডস পুলিশের দারস্থ হয় নম্রতা । ঋতব্রতর বিরুদ্ধে দায়ের করে ধর্ষণের মামলা । সূত্রের খবর অনুসারে খুব শীঘ্রই নেদারল্যান্ডস পুলিশের তরফ থেকে ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের কাছে মামলার কপি পাঠানো হবে ও সেই সাথে তদন্ত শুরু করবে নেদারল্যান্ডস পুলিশ । যদিও এই ব্যপারে ঋতব্রত বন্ধ্যোপাধ্যায়ের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, যেহুতু বিষয়টি এখনও কোর্টে বিচারাধীন, তাই এই বিষয়ে কোন মন্তব্য তিনি এখন করবেন না। যদিও সম্পূর্ণ ঘটনাটি সাজানো ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রনদিত বলেও দাবী করেন বর্তমান উপজাতি উন্নয়ন পর্ষদের আহ্বায়ক ঋতব্রত বন্ধ্যোপাধ্যায় । 

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]