ষোল জানুয়ারি সমগ্র দেশের সাথে রাজ্যেও শুরু হয় কোভিড টিকাকরন কর্মসূচী। ষোল জানুয়ারি থেকে ছাব্বিশ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রাজ্যের এক লক্ষ এগার হাজার চারশ বাহাত্তরটি টিকার ডোজ দেওয়া হয়েছে। সোমবার থেকে সমগ্র দেশের পাশাপাশি রাজ্যেও সাধারন মানুষের জন্য কোভিড১৯ ভ্যাক্সিনেশন শুরু হয়েছে।তৃতীয় পর্যায়ে এই কর্মসূচিতে ষাটোর্ধ্ব কিংবা তার বেশি বয়সের যেসব লোক ভারত সরকারের স্বাস্থ্য-পরিবার কল্যাণ দপ্তর দ্বারা চিহ্নিত রোগে আক্রান্ত তাদেরকে এই কোভিড১৯ ভ্যাক্সিনেশন আওতায় আনা হচ্ছে না। পয়লা মার্চ রাজধানী আগরতলার আইজিএম হাসপাতালেও সাধারন মানুষের কোভিড১৯ টিকা প্রদান করা হয়।

এদিন সকাল নটা থেকে টিকাকরন শুরু হয়,শেষ হয় বিকেল চারটায়। কোভিড১৯ ভ্যাক্সিনেশন জন্য আইজিএম হাসপাতালে ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। টিকাকরণের পর আধ ঘণ্টা পর্যন্ত টিকা গ্রহীতাদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়।এই টিকা গ্রহণে কোন অসুবিধা হবে কিনা তা জানতে টিকা গ্রহীতারা ঔৎসুক্য ছিল বলে জানান এক এক স্বাস্থ্য কর্মী,টিকা প্রদানের ক্ষেত্রে কোন ধরনের সমস্যা হয়নি বলেও জানান ঐ স্বাস্থ্য কর্মী। টিকা নেওয়ার পর শরীরে জ্বর আসতে পারে কিংবা হাল্কা ব্যাথা অনুভব হতে পারে বলে টিকা গ্রহীতাদের পরামর্শ দেওয়া হয় টিকা গ্রহণের পড় জ্বর এলে স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মী কিংবা আশা কর্মী দের সাথে যোগাযোগ করার জন্য। তবে টিকা গ্রহণ করলেও মাস্ক ও স্যানিটেশন বাধ্যতামূলক বলে জানান তিনি।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]