নিউজ ডেস্ক, ত্রিপুরাঃ-ত্রিপুরা থে‌কে অস‌মে যাওয়ার পথে চোরাইবা‌ড়ি পু‌লিশ চেক পো‌ষ্টে ধরা পড়ল আট শিশু সহ ত্রিশজন স‌ন্দেহ ভাজন রো‌হিঙ্গা।‌সোমবার সন্ধ্যারাতে আগরতলা থে‌কে গুয়াহা‌টিগা‌মি AS25CC8685 নম্বরের নেটওয়ার্ক নাইট সুপার থেকে পু‌লি‌শের রু‌টিন চেকআপের সময় সন্দেহভাজন ত্রিশ যাত্রী‌কে না‌মি‌য়ে জেরা করা শুরু করে চুরাইরাইবাডি থানার পুলিশ।জেরা শুরু করতেই ঝুলা থে‌কে বিড়াল বে‌রি‌য়ে আসে।যাত্রীরা পু‌লি‌শের প্র‌শ্নের জবা‌বে নি‌জে‌দের মায়ান্মা‌রের রো‌হিঙ্গা দাবি করে।প‌রে ধৃত‌দের জিঙ্গাসাবাদ চালা‌তে আকুলস্থ‌লে পৌঁছান অসমের বাজা‌রিছড়া থানার ও‌সি গৌতম দাস সহ শংকর চক্রবর্ত্তী ও মানব‌জ্যো‌তি মালাকার।পু‌লি‌শী জিঙ্গাসাবা‌দে আটক রো‌হিঙ্গারা জানায় যে তারা মায়ান্মা‌রের ডমবাই ব‌লিবাজার হৃদর‌কোল গ্রা‌মের বাসিন্দা।তা‌রা জানায় যে তাদের পূর্বপুরু‌ষরা ‌ব্রি‌টিশ আম‌লে বাংলা‌দেশ থে‌কে বার্মাতে গি‌য়ে বস‌তি গ‌ড়ে তুলেছিল,প‌রে সেখা‌নে থেকে তারা বার্মা হ‌য়ে বাংলা‌দে‌শে চ‌লে যায়।‌সেখা‌নে কয় বছর থাকার পর তারা রোজগারের তা‌গি‌দে জম্মু নে‌রো‌য়েল ক‌লো‌নিতে বসবাস শুরু ক‌রে। এরা প্রথমে ছিল জম্মু-কাশ্মীরে, এদেরকে পশ্চিমবঙ্গের রাজু নামের এক যুবক কাজ দেবে বলে ত্রিপুরায় নিয়ে আসে।তারা চার মাস আগে ‌ত্রিপুরার আগরতলা পৌছায়,সেখা‌নে তারা বাধারঘাট এলাকার এক‌টি হো‌টে‌লে কয়‌দিন থাকার পর কোনও কা‌জের সন্ধান না পে‌য়ে কলকাতার জ‌নৈক রাজু না‌মের দালালের সহ‌যো‌গিতায় সোমবার সকা‌লে রেহান নাইট সুপারে করে গুয়াহা‌টির উদ্দে‌শ্যে পা‌ড়ি দেয় ব‌লে জানায়।  তা‌দের‌কে তল্লাশি ও প্রাথ‌মিক জিজ্ঞাসাবাদের পর স্থা‌নিয় পু‌লিশ এদিন রা‌তেই তা‌দের‌কে ক‌রিমগঞ্জ ডিএ‌স‌পি ব্রা‌ঞ্চের হাতে হস্তান্তর ক‌রে‌ছে।এদিকে ত্রিপুরার প্রবেশদ্বার চোরাইবা‌ড়িতে স‌ন্দেহ ভাজন রো‌হিঙ্গা‌দের আটকের ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর স‌চেতন মহ‌লে নানা প্রশ্ন চিহ্ন দেখা দি‌য়ে‌ছে।এদের কাছ থেকে কোনও অবৈধ সামগ্রী পাওয়া না গেলেও, এদের স‌ঙ্গে থাকা ইউনাইটেড নেসনস হাইকমিশনার ফর রিফিউজী-র প্রমানপত্র নি‌য়ে স‌ন্দেহ প্রকাশ ক‌রে‌ছে পু‌লিশ।এখন প্রশ্ন হচ্ছে কি ভাবে ত্রিপুরার সবকয়টি থানা পেরিয়ে নিরাপদে বহিরাজ‍্যে পাড়ি দিচ্ছিল এই রোহিঙ্গা দলটি অথবা কী ভাবেই এরা নিরাপদে এই রাজ্যে প্রবেশ করল?

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]