নিউজ ডেস্ক কলকাতা ঃ-

তৃণমূলে সবথেকে বড় ভাঙন লোকসভা ভোটের আগেই এটাই। তৃণমূলে ভাঙন ধরছে লোকসভা ভোট যত এগিয়ে আসায়। বিজেপিতে এর আগেই যোগ দিয়েছিলেন সাংসদ, বিধায়ক। বিজেপিতে এবার প্রচুর পরিমাণে কর্মী সমর্থকেরাও তৃণমূল ছেড়ে যোগ দিচ্ছেন। বিজেপি লোকসভা ভোটের আগে তৃণমূলকে চারিদিক থেকে ভেঙে ক্রমশই এরাজ্যের প্রধান শক্তি হয়ে উঠে আসছে। বিজেপি ২রা এপ্রিল ইসলামপুরের পাঞ্জিপাড়ায় আয়োজন করেছিল একটি পথসভার। ওই পথ সভায় উপস্থিত ছিলেন রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী দেবশ্রী চৌধুরী সহ জেলার অন্যান্য নেতারা। আর তৃণমূলে এই পথসভাতেই বড়সড় ভাঙন ধরে। বিজেপিতে তৃণমূলের বিভিন্ন সংগঠন থেকে দশ হাজার কর্মী সমর্থক এদিন নাম লেখান। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে জেলায় এই দলবদল অনেকটাই শক্তি বৃদ্ধি করলো বিজেপির। বিজেপিকে এই কেন্দ্রে এমনিতেই সব সমীক্ষায় এগিয়ে রাখছে। রায়গঞ্জের বর্তমান সাংসদ মহঃ সেলিমকে হারিয়ে এই আসন বিজেপির হাতে যাচ্ছে বলেই খবর। আর লোকসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলের এই ভাঙন স্পষ্ট করে দিলো যে, এই আসনে বিজেপি ছাড়া আর কেউ জিততে পারছে না। দল ত্যাগী, তৃণমূল অঞ্চল কমিটির সমরকাঞ্জি লাল বলেন ‘তৃণমূল কংগ্রেসের জন্ম থেকেই আমরা তৃণমূলে ছিলাম। কিন্তু তৃণমূলের মধ্যে নীতি দিনদিন হ্রাস পাচ্ছে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই। স্বৈরাচারী হয়ে উঠেছে দলটা। আমরা দশ হাজার কর্মী মিলে এরজন্যই তৃণমূল ছাড়লাম। তৃণমূল দিনদিন অগণতান্ত্রিক হয়ে উঠছে বক্তব্য বিজেপির প্রার্থী দেবশ্রী চৌধুরীর। রাজ্যে যেমন কোন আইন শৃঙ্খলা নেই তেমনি দলেও কোন শৃঙ্খলা নেই। কাজের লোক বাদে সব খাওয়াখাওয়ির মানুশে ভরে গেছে দলে। তৃণমূল কর্মীরা ভারতকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য বিজেপিতে যোগদান করলেন নরেন্দ্র মোদীর আদর্শে অনুপ্রেরিত হয়ে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]