ধর্মনগর: ০৭ এপ্রিল,কোভিড-১৯ সংক্রমণের দ্বিতীয় দফায় গোটা দেশ আজ পুনরায় ব্যতিব্যস্ত।এরই বিরুদ্ধে পুনরায় সর্বসাধারণকে সচেতন করে তোলতে দেশ জুরে চলছে সরকারি তৎপরতা। তাই প্রতিটি জেলা থেকে মহকুমা স্তরে চলছে সাধারন জনগন থেকে শুরু করে সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে জরুরি কালীন পরিস্থিতিতে সচেতনতা মূলক কর্মসূচি।এরই ফলশ্রুতিতে আজ দুপুর ১২ ঘটিকায় পানিসাগর মহকুমা প্রশাসনের উদ্দ্যোগে পানিসাগর পঞ্চায়েত সমিতির কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত হয় মহকুমার প্রতিটি সরকারি দপ্তর,বেসরকারি সংস্থা, ক্লাব,এন.জি.ও,মন্দির, মসজিদ,গির্জা,বাজার কমিটি এবং স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের কর্মীদের নিয়ে এক জরুরি কালীন সভা।

উক্ত সভার পৌরোহিত্য করেন পানিসাগর মহকুমার মহকুমা শাসক লাল নুন নেইমি ডার্লং,তৎসঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি কালেক্টর মঃ নুরুজ্জামান মহাশয়।এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পানিসাগর পঞ্চ দেবতা কমিটির সক্রিয় সদস্য, ওয়াক অব বোর্ডের সক্রিয় সদস্য,পানিসাগর বাজার কমিটির সক্রিয় সদস্য,রাম কৃষ্ণ সেবা সমিতির সদস্য,সৎসঙ্গের সদস্য,তহশিলদার, আই,সি,ও,এবং মিডিয়ার সক্রিয় সদস্য বৃন্ধ।উক্ত সভায় আগামী কাল মাক্স এনফোর্সমেন্ট ডে ২০২১ কে যথাযথ মর্যাদায় সহিত পালন করতে মহকুমা প্রশাসনের পক্ষথেকে আহ্ববান জানানো হয়েছে।এই মর্মে ৩ এপ্রিল ২০২১ দ্য এপিডেমিক ডিজিজ কোভিড-১৯ রেগুলেশন ২০২০ অনুযায়ী কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।এই বিধিনিষেধ আগামী ৩০ এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।পাব্লিক প্রেস অথবা কাজের জায়গায় অথবা যানবাহনে চলাচল বা যানবাহন চালনার ক্ষেএে বড়ি ঘরে তৈরি ধোয়া যায় এমন কাপরের মাক্স অথবা যে কোন কাপর দিয়ে নাক,মুখ,ঢেকে রাখা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।এছাড়াও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাচল বাধ্যতা মুলক করা হয়েছে। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে দোকান চালাতে হবে।

দোকানের সামনে এক মিটারের কম জায়গায় এক সঙ্গে এক জনই থাকতে পারবেন।একমিটারের বেশি এলাকা অথচ দুই মিটারের চেয়ে কম জায়গা থাকলে সেখানে একসঙ্গে দুজন থাকতে পারবেন।অবশিষ্টরা লাইনে এক মিটার দূরে দূরে দাড়াতে পারবেন।ক্রেতা বিক্রেতা উভয়কেই মাক্স পরিধান করতে হবে।পাশাপাশি ঐ এলাকায় প্রতিদিন নিয়মিত সেনিটাইজিং করতে হবে।এই নিয়ম অনুযায়ী মাক্স না পড়া, মুখ না ডাকার জন্য প্রথমবার ২০০ টাকা এবং এর পর প্রতিবারের ক্ষেএে ৪০০ টাকা করে জরিমানা করা হবে।পাব্লিক এবং বেসরকারি যানবাহনে বিভিন্ন দোকানে সামাজিক দূরত্ব যথাযথ ভাবে বজায় রাখা না হলে এবং হোম কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম কানুন লঙ্গন করলে ১০০০ টাকা জরিমানা করা হবে।কোন ব্যক্তি, প্রতিষ্টান, সংস্থা এই সব বিধিনিষেধ অমান্য করলে ভারতীয় দন্ড বিধির ১৮৮ ধারা মোতাবেক শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই নিয়ে মহকুমা শাসক সভায় উপস্থিত সকলের সহযোগিতার হাত বারিয়ে দিয়েছেন।তিনি উল্লেখ করেন,মাক্স পরিধান বা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা প্রতিটি ভারতীয় নাগরিকের মৌলিক কর্তব্য।এতে কে মানল বা কে না মানল সেটা বড় কথা নয়,আপনি নিজে একজন কর্তব্য পরায়ন নাগরিক হিসেবে মেনে চলাই বাঞ্চনীয় ।অতএব এই ক্ষেএে প্রশাসনের পক্ষথেকে নিয়মিত নজরদারি রাখার পাশাপাশি আইনি প্রক্রিয়াও জারি রাখা হবে বলে জানান মহকুমা শাসক।এখন দেখার প্রসাশনিক বিধিনিষেধ কতটা মেনে চলে সাধারন জনগন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]