নিউজ ডেস্ক কলকাতা ঃ-

মেখলা দাশগুপ্ত, সোমলতা আচার্য, ইমন চক্রবর্তী রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠান করতে গিয়ে হেনস্তার শিকার হচ্ছেন গায়িকারা। রবিবার রাতে কৃষ্ণনগরে অনুষ্ঠান শেষে রীতিমতো গেট বন্ধ করে জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত গায়িকা ইমন চক্রবর্তী ও তাঁর সহশিল্পীদের দীর্ঘক্ষণ আটকে রাখা হল। হুমকি দেওয়া হল, ‘যেতে দেব না, কী করবি কর’। রাতে ঘটনাস্থল থেকে ফেসবুকে লাইভে গোটা ঘটনাটি তুলে ধরেন গায়িকা ইমন চক্রবর্তী নিজেই।
মমতা রাজ্যে শিক্ষা-সংস্কৃতি অন্তর্জলী যাত্রা ঘটেছে। ফ্যাসিজমের চূড়ান্ত নিদর্শন দেখা গেল কলকাতায়। জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত সংগীতশিল্পী ইমন কৃষ্ণনগরে এক সংগীত অনুষ্ঠানে গিয়ে হেনস্তার শিকার হন বলে অভিযোগ। অভিযোগ করেন সংগীত শিল্পী ইমন।এই মুহুর্তেই অনুষ্ঠানের সংগীত শিল্পী ও তার সহযোগীদের জোর করে আটকে রেখে চরম হেনস্থা করা হয়। কৃষ্ণনগর পৌরসভার কর্মীরা তাদের আটকে রাখেন। পরে কয়েকজন সহৃদয় দর্শকদের সহায়তায় শিল্পী ও কয়েকজন পালিয়ে আত্মরক্ষা করতে পারলেও দলের বাকিরা দীর্ঘ সময় আটকে থাকতে বাধ্য হন। এদিকে সংগীত শিল্পী ইমন চক্রবর্তী জানান এ ঘটনার পর কোন মতে পালিয়ে যেতে পারায় গাড়িতে করে তিনি বাড়ির পথে রওনা দিতে পেরেছেন। সেই ফাঁকে শিল্পী ইমন গাড়িতে ফেরার পথে ফেসবুক লাইভ করেন। সেখানেই তিনি নিজের ও তার দলের অন্যান্য শিল্পীদের সঙ্গে হওয়া ঘটনার তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেন।
সঙ্গীত শিল্পী ইমনের ফেসবুক লাইভ এর বয়ান অনুযায়ী জানা যায় যে মাত্র ১৫০০০ টাকার অগ্রিম সত্বেও কৃষ্ণনগর পৌরসভার আমন্ত্রণে তিনি অনুষ্ঠান করতে গিয়েছিলেন। অনুষ্ঠানে যাওয়ার পর থেকেই তাদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করা হচ্ছিল। তবুও হাসি মুখে মানিয়ে নিয়েছিলেন তারা।গানের জন্য সন্ধে সাতটায় মঞ্চ পাওয়ার কথা থাকলেও রাত আটটায় গান গাওয়ার জন্য তারা মঞ্চ পান। সঙ্গীত শিল্পী ইমন চক্রবর্তীর অভিযোগপুরসভার যে গেস্ট হাউসে তাদের রাখা হয়েছিল সেখানে আয়োজকদের কেউ দেখা পর্যন্ত করেননি। ঝামেলা বাধে এরপর। পুরস্কারপ্রাপ্ত সংগীতশিল্পী ইমন চক্রবর্তী অভিযোগ করেন যে মঞ্চে তিনি গান গেয়েছিলেন প্রায় পনে দুই ঘন্টা। কিন্তু আয়োজকদের তরফ থেকে বলা হয় তিনি নাকি মাত্র 1 ঘন্টা গান গেয়েছেন। আয়োজকরা তার কাছে আরো গান গাওয়ার দাবি করেন। ইমন তার প্রতিবাদ করলে আয়োজকেরা তাদের আটকে রাখেন। সেই সাথে আটকে পড়েন সহযোগী শিল্পীরাও। ইমনকে পরে দর্শকরাই মুক্ত করেন।যারা এই মনকে মুক্ত করেছেন তিনি তাদের কাছেই দাবি করেন সহযোগীদের মুক্ত করার জন্য।শিল্পীর মুখে আয়োজকদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা শোনা যায়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]