নির্ধারিত সময়সূচি মেনে সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা হবে আগামী ৪ অক্টোবর। করোনা সংকটের জন্য তা স্থগিত রাখার প্রশ্নই ওঠে না। সোমবার সুপ্রিম কোর্টে এমনই জানাল ইউনিয়ন পাবলিক সার্ভিস কমিশন (ইউপিএসসি)। সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার জন্য আবেদন জমা পড়েছিল সর্বোচ্চ আদালতে। সেই আবেদনের ওপরে এদিন শুনানি হয়। সুপ্রিম কোর্ট মঙ্গলবার এসম্পর্কে এফিডেবিট পেশ করার জন্য নির্দেশ দিয়েছে ইউপিএসসি-কে। ওই আবেদনের ওপরে ফের শুনানি হবে আগামী ২৩ অক্টোবর। এর আগে স্থির হয়েছিল, ৩১ মে সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা হবে। কিন্তু অতিমহামারীর জন্য পরীক্ষা ৪ অক্টোবর পর্যন্ত পিছিয়ে দেওয়া হয়। ২০ জন সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার্থী সর্বোচ্চ আদালতে আবেদন করেন, কোভিড অতিমহামারীর পাশাপাশি দেশের নানা প্রান্তে বন্যাও দেখা দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা আরও দুই থেকে তিন মাস পিছিয়ে দেওয়া হোক  আবেদনকারীরা বলেছিলেন, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষার সঙ্গে সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার অনেক পার্থক্য রয়েছে। কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা পিছিয়ে গেলে অ্যাকাডেমিক ইয়ার নষ্ট হয়। কিন্তু সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা নেওয়া হয় চাকরিতে নিয়োগ করার জন্য। ওই পরীক্ষা পিছিয়ে গেলে বছর নষ্ট হওয়ার প্রশ্ন নেই। সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার্থীদের বক্তব্য ছিল, এইসময় পরীক্ষা নেওয়া হলে লক্ষ লক্ষ পরীক্ষার্থী বিপদে পড়বেন। তাঁদের অসুস্থ হয়ে পড়ার সম্ভাবনা দেখা দেবে। কেউ কেউ মারাও যেতে পারেন। ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬০ লক্ষ পেরিয়ে গিয়েছে। সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৯৫ হাজারেরও বেশি মানুষের। তবে এর পাশাপাশি সুস্থও হয়েছে ৫০ লক্ষের বেশি। যদিও ভারতে এখনও অ্যাকটিভ কেস সাড়ে ৯ লক্ষের বেশি।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]