নিউজ ডেস্ক, আগরতলাঃ- দীপা কর্মকারের পর ট্রেসি ডার্লং , আবারও রাজ্যের মুখ উজ্জ্বল করল এই সোনার মেয়ে । 


ডার্লং ত্রিপুরা রাজ্যের ধলাই জেলার কাঞ্চনচেরা এলাকায় একটি দূরবর্তী গ্রাম ৮২মাইলের অধিবাসী, ত্রিপুরা রাজধানী আগরতলা থেকে প্রায় ১৪০ কিলোমিটার দূরে। এমনকি ৮২মাইল প্রপার হাইস্কুলের ছাত্রী ট্রেসি তার ক্রীড়া দক্ষতার জন্য পরিচিত ছিল সকলের কাছে । ট্রেসি ক্রীড়া খুব আগ্রহী ছিল – সেটা যে কোনও ধরনেরই হোক , স্কুলে ঘোড়াদৌড়, শট রাখা, বর্শা ছোড়া, কাবাডি, ফুটবল, ভলিবল সবই । তার বাড়ি, দেওয়াল ঘড়ি এবং অন্যান্য স্মৃতিচিহ্ন দিয়ে ভরা যা সে পুরস্কার হিসাবে পেয়েছে। ট্রেসি ডার্লং এর স্বপ্ন ছিল একদিন ভারতের জন্য স্বর্ণ জেতা । ২০ বছর বয়সী এই মেয়ে কিকবক্সিং-এ ইতিমধ্যেই পাঁচটি স্বর্ণপদক জিতেছে এবং বর্তমানে চেন্নাইয়ে বক্সে ফ্রানচাইজি স্যাভেট চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণের জন্য রয়েছে। 

সোনা জেতার পর ট্রেসি জানায় “আমার মা আমাকে এখানে আসার জন্য এবং আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণের জন্য তার গহনা বিক্রি করে। সবাই এমন সুযোগ পায় না। আমি আমার মায়ের কারণে এটি পেয়েছি , “আমি তার জন্য সবকিছু করতে চাই । আমি মনেপ্রানে চেয়েছিলাম একদিন ভারতের জন্য স্বর্ণ জিততে যাতে আমার মা, আমার মা হওয়ার জন্য গর্ববোধ করতে পারে “। তার পাশাপাশি ট্রেসি তার কোচ পিনকি চক্রবর্তী কেও ধন্যবাদ দিয়ে বলে, পিনকী স্যার আমাদের বাড়িতে গিয়েছিলেন এবং আমাকে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার অংশগ্রহণে সমস্ত সহযোগিতা করেন । তিনি আমার মাকে বলেছিলেন আমাকে একজন খুব ভাল যোদ্ধা হতে হবে । 

তাই, কিক বক্সিং চ্যাম্পিয়নশিপে ট্রেসির সোনা জয়ের পরই আনন্দে মেতে ওঠে তার পরিবার সহ, ৮২মাইল গ্রামের সকলে । দীপা কর্মকারের পর ত্রিপুরার আরেক সোনার মেয়ে ট্রেসি ডার্লং-এর এই অভূতপূর্ব সাফল্য ও রাজ্য এবং দেশের নাম উজ্জ্বল করায় তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে আপামর ভারতবাসী , সেইসাথে আমাদের তরফ থেকেও ট্রেসির জন্য থাকল একরাশ ভালবাসা ও অভিনন্দন ।  

By admin

One thought on “এশিয়ান গেমস এর পর এবার কিক বক্সিং চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা এল ভারতে ।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]