নিউজ ডেস্ক নয়াদিল্লী ঃ-

দেশের মধ্যে প্রথম ইঞ্জিন ছাড়া ট্রেন বন্দে ভারত এক্সপ্রেস খুব শীঘ্রই পেতে চলেছে দেশের জন সাধারণ। রেলওয়ে মন্ত্রকের এক বরিষ্ঠ আধিকারিক জানান যে আগামি পনেরো ফেব্রুয়ারি দিল্লির রেলওয়ে স্টেশন থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সকাল দশটা নাগাদ এই ট্রেনের শুভ সূচনা করবেন।এই বন্দে ভারত এক্সপ্রেস দিল্লি থেকে বারাণসীর মধ্যে ছুটবে।১৬ কোচের এই ট্রেন ত্রিশ বছরের পুরানো শতাব্দি একপ্রেসের জায়গা নেবে।
এই ট্রেন দেশের মধ্যে সবচেয়ে দ্রুতগামী।একশ আশি কিমি ও বেশি দ্রুত গতিতে যেতে পারবে।এই ট্রেন ট্রায়াল রানের সময় দিল্লি রাজধানী রুটে একশ আশি কিমি প্রতি ঘণ্টার ও বেশি গতিতে ছুটতে সক্ষম হয়েছে।এই ট্রেনের নির্মাণ করা হয়েছে চেন্নাই এর ইন্ট্রিগ্রেল কোচ ফ্যাক্টকরি তে।‘বন্দে ভারত” এক্সপ্রেসের নাম দিয়েছেন ভারতের রাল মন্ত্রী পিয়ুষ গোয়ল। ‘বন্দে ভারত” এক্সপ্রেস নির্মাণে খরচ হয়েছে মাত্র একশ কোটি টাকা, কিন্তু গোটা দেশকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে এই ট্রেন।
এখন বিশ্বের বাজারে সবথেকে কম বাজেটে বানানো সম্পূর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি এই ট্রেন অত্যাধুনিক ট্রেন হিসেবে উঠে এসেছে। সম্পূর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি এই ট্রেন কেনার জন্য লাইন লাগিয়েছে অন্যান্য দেশ গুলো।প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর একটি স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করেছে বন্দে ভারত এক্সপ্রেস।এই ট্রেনটিকে সফল ভাবে তৈরি করার জন্য ট্রেনের নির্মাতা কম্পানি এবং কারিগরদের অশেষ ধন্যবাদ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি এই বন্দে ভারত এক্সপ্রেসকে ভারতের নতুন সূচনা হিসেবে তুলে ধরতে চান সবার সামনে।এর আগেও ভারতে বুলেট ট্রেন চালানোর স্বপ্ন দেখেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।সেই স্বপ্ন ও বাস্তবায়িত হতে চলেছে।আগামী ২০২২ এর মধ্যে ভারতের রেল লাইনে বুলেট ট্রেনকে ছুটতে দেখতে পাবে ভারত বাসী।শুধু মাত্র ট্রেনের উন্নতি করেই থেমে থাকেন নি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।প্লাটফর্ম রেল লাইনকে স্বচ্ছ বানিয়ে দেশকে স্বচ্ছ রেলের উপহার দিয়েছেন উনি।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]