নিউজ ডেস্ক, ইসলামপুরঃ- ইসলামপুর দারিভিটে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য । 

ইসলামপুরের দারিভিট উচ্চবিদ্যালয়ের উর্দু শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে ছাত্র আন্দোলনের জেরে, পুলিশের গুলিতে প্রান গেছে ওই বিদ্যালয়ের দুই প্রাক্তন ছাত্র রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মণের । সেই নিয়ে এখনও উত্তাল রাজ্য রাজনীতি । দোষীদের শাস্তির জন্য সিবিআই তদন্তের দাবীতে শবদেহ দাহ না করে মাটিতে কবর দিয়ে রেখেছে শহিদদের পরিবার । চলছে শাসক বিরোধী কাঁদা ছোঁড়াছুড়ি । এই নৃশংস ঘটনার প্রতিবাদে পথে নেমেছে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল বিজেপি , আগামী ২৬শে সেপ্টেম্বর সারা রাজ্যে ১২ ঘণ্টার বন্ধও ডাকা হয়েছে । বিজেপির সাড়াশি আক্রমনে এইমুহূর্তে দিশেহারা অবস্থা রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের । কে বা কারা এই ঘটনার পেছনে মদত দিয়েছে সেই উত্তর দিতে এখনও ব্যার্থ রাজ্য সরকার ।

ঠিক সেই মুহূর্তেই দারিভিটের হত্যাকাণ্ড নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিল গোয়েন্দারা । গোয়ন্দা সূত্রে খবর অনুসারে, তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলেই এই মর্মান্তিক ছাত্র হত্যাকান্ড । উত্তর দিনাজপুরে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এমন পর্যায়ে গিয়েছে যে, ইসলামপুরের তৃণমূল বিধায়ক কানাইলাল আগরওয়াল এবং গোয়ালপোখরের তৃণমূল বিধায়ক গোলাম রব্বানির মধ্যে প্রতিনিয়ত ‘ঠোকাঠুকি’ লেগেই থাকত । তৃণমূল কংগ্রেসের দুই বিধায়কের মধ্যে ঠান্ডা লড়াই৷ ফলস্বরূপ দারিভিটের হত্যাকাণ্ড৷ গোয়ন্দা সূত্রে খবর, একদিকে গোলাম রব্বানি চেয়েছিলেন উর্দু এবং সংস্কৃতের দুই শিক্ষকই বিদ্যালয়ে চাকরিতে যোগ দিক অন্যদিক স্কুলে উর্দু এবং সংস্কৃত শিক্ষক নিয়োগ হোক তা কানাইলালের পছন্দ ছিলনা । এখান থেকেই হয় ঝামেলার সূত্রপাত । 

গোয়েন্দা সূত্র থেকে আরও জানা যায়, পুলিশ যতই অস্বীকার করুক না কেন, আন্দোলনরত ছাত্র এবং সাধারণ মানুষকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়া হয়েছিল পুলিশের গাড়ির দিক থেকেই কারন বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতেকেই বলেছে পুলিশের গাড়িতে করে কয়েকজন পুলিশকর্মী এবং শিক্ষকদের বাইরে বের করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, সেইসময় আন্দোলনরত ছাত্রছাত্রীদের সামনে আসতেই গাড়ি থেকে ছোঁড়া হয় গুলি । তবে যাই হোক না কেন তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কথা কিন্তু স্বীকার করতে নারাজ উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল । তাদের দাবী দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য নাকি অপপ্রচার চালানো হচ্ছে । 
  

তবে যাই হোক না কেন, দারিভিটের হত্যাকাণ্ডের পর ৫ দিন কেটে গেলেও কেন দাড়িভিট স্কুলে উর্দু শিক্ষক নিয়োগ?? কেনই বা স্কুলের পরিচালন কমিটির বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্ত রাতারাতি বদলে গেল? কেনই বা গুলি চলল ? কেন অকালে ঝড়ে গেল দুটি তাজা প্রান?? কারা যুক্ত, কাদের মদতে এই ঘটনা ঘটল??  এখন পর্যন্ত কোন প্রশ্নের কিন্তু উত্তর পেল না শহিদের পরিবার, ইসলামপুরের জনগণ সহ সারা দেশের মানুষ ।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]