ওয়েব ডেস্ক :ট্রায়াল শুরু হয়েছে করোনা ভ্যাকসিন ট্যাবলেটের। লস অ্যাঞ্জেলস লেকারস সেরকমই সুখবর দিতে চলেছে।
ওই সংস্থার সদস্য ডঃ প্যাট্রিকের নেতৃত্বধীন টিম এই ধরণের ট্যাবলেটের কাজ শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই সুস্বাস্থ্যের অধিকারী বেশ কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবকের ওপর এই ধরণের ট্যাবলেটের প্রয়োগ শুরু হয়েছে। একাধিক ট্যাবলেট যদি ইঞ্জেকশনের মতোই কাজ করে, তার পরীক্ষা চলছে। এতে চিকিৎসার খরচও অনেকটা কমবে বলে জানানো হয়েছে। করোনা ভ্যাকসিনের ট্যাবলেট নিয়ে অধিক পরিমাণ মানুষের কাছে পৌঁছনো যাবে বলে বিজ্ঞানীরা আশাবাদী।

৫৫ বছরের নীচে বয়েসীদের ওপর করোনা ভ্যাকসিনের ট্যাবলেটের প্রয়োগ করা হচ্ছে। আমেরিকার কোম্পানি ওরামেড ফার্মাসিউটিক্যালসের সঙ্গে যৌথভাবে করোনার ক্যাপসুল বানানোর প্রস্তুতি শুরু করেছে প্রেমাস বায়োটেক। গত ১৯ মার্চ এই ক্যাপসুলের কথা ঘোষণা করেছে দুই সংস্থা। তাদের তরফে দাবী করা হয়েছে একটি সিঙ্গল ডোজ নেওয়ার পর এর কার্যকারিতার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। এই ক্যাপসুলের নাম রাখা হয়েছে ওরাভ্যাক্স। এর একটি ক্যাপসুল পশুদের উপর পাইলড স্টাডি করা হয়েছিল। পশুদের উপর পরীক্ষায় করে জানা গিয়েছে,ওরাভ্যাক্স ওরাল ভ্যাকসিন নিউট্রিলাইজিং অ্যান্টিবডিস ও অনাক্রম্যতা তৈরি করতে সক্ষম।

গবেষকরা জানিয়েছেন তিন ধরণের স্বেচ্ছাসেবকদের ওপর ট্যাবলেট ভ্যাকসিনের কাজ চলছে। এক, এই বিভাগের স্বেচ্ছাসেবকরা ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে করোনা ভ্যাকসিন নিয়েছেন। দুই, এই বিভাগের স্বেচ্ছাসেবকরা কোনও ধরণের ভ্যাকসিনই নেননি। তিন, এই বিভাগের স্বেচ্ছাসেবকরা ইঞ্জেকশন ও ট্যাবলেট দুই ধরণের ভ্যাকসিনই নিয়েছেন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]