নিউজ ডেস্ক নয়াদিল্লী ঃ-

আবারও সাফল্য পেলো মাও দমন অভিযানে৷ এনকাউন্টারে খতম তিন মাওবাদী নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে৷ তবে এক সিআরপিএফ জওয়ানও অভিযানে প্রাণ হারিয়েছেন৷ ১৫ই এপ্রিল সকাল ছয়টায় ঝাড়খণ্ডের মাও অধ্যুষিত বেলভা ঘাট জঙ্গলে অপারেশন শুরু করে সিআরপিএফের সপ্তম ব্যাটেলিয়নের জওয়ানরা৷ ঠিক সেই সময় শুরু হয় এনকাউন্টার৷ ৩ মাওবাদীকে অবশেষে নিকেষ করা হয় কয়েকঘণ্টার অপারেশন শেষে৷ তবে এক সিআরপিএফ জওয়ান শহিদ হন দু’পক্ষের গুলির লড়াইয়ে৷ এদিকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে অস্ত্র ও বোমা৷ যার মধ্যে রয়েছে একে ৪৭ রাইফেল, ৩টি ম্যাগজিন, ৪টে পাইপ বোমা ইত্যাদি৷ ঝাড়খণ্ডে লোকসভা ভোট শুরু চতুর্থ দফা অর্থাৎ ২৯ এপ্রিল থেকে৷ এরপর ৬, ১২ ও ১৯ মে পরপর রাজ্যে ভোট৷ লোকসভা ভোটের মুখে মাও অধ্যুষিত এলাকাগুলিতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে মাওবাদীরা৷ একের পর এক প্রাণঘাতী হামলা চালিয়েছে ভোট বানচাল করতে৷ আবার কোথাও ভোটারদের মধ্যে ভয়ের সঞ্চার করতে হামলা চালায় তারা৷ তবে লোকসভা ভোটের সময় সবথেকে ভয়াবহ হামলাটি হয়েছে ছত্তিশগড়ের দান্তেওয়াড়াতে৷ বিজেপি বিধায়ক ভীমা মান্ডবি মাওবাদীদের গড় বলে পরিচিত দান্তেওয়াড়াতে ভোট প্রচারে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন৷ আইইডি বিস্ফোরণের জেরে প্রাণ নিহত হন তাঁর নিরাপত্তা কর্মীরা৷ প্রথম দফার ভোটের দিন আবার মহারাষ্ট্রের গড়চিরোলিতে পোলিং বুথের সামনে বিস্ফোরণ ঘটে৷ হামলা নেপথ্যে মাওবাদীরা৷ তবে কারোর প্রাণহানি হয়নি বিস্ফোরণে৷ নিরাপত্তা কর্মীরা জানান, ভোটে বিঘ্ন ঘটাতে এবং ভোটাদের মধ্যে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করতে এই বিস্ফোরণ ঘটায় মাওবাদীরা৷

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]