নিউজ ডেস্ক, তুষার বিশ্বাস, ইসলামপুর:- স্কুল বন্ধের প্রায় দুই মাসের মাথায় তা খোলার সিদ্ধান্তে একমত হলো গ্রামবাসীরা।তবে শর্ত পূরণ না হলে ফের আন্দোলনে সামিল হবেন গ্রামবাসীরা।

দারিভিট কান্ডে গুলিবিদ্ধ হয়ে দুই পড়ুয়ার মৃত্যুর ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার এলাকার বাসিন্দাদের মোমবাতি মিছিলে প্রতিধ্বনিত হলো প্রতিবাদ।বিজেপি নেতৃত্বের উপস্থিতিতে সিবিআই তদন্তের দাবিতে সরব হলেন তারা। গড়ে তোলা হলো মানব বন্ধণ।বুধবার সন্ধ্যায় দারিভিট হাই স্কুল থেকে মিছিলটি বেরিয়ে এলাকা পরিক্রমা করে ।বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদক সুরজিৎ সেন জানান,পড়ুয়াদের পঠন পাঠনের স্বার্থে তাদের অনুরোধে অভিভাবকরা যে স্কুলে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছিল সেই চাবি তারা  প্রশাসনের হাতে তুলে দেবেন।তবে অন্যায় ভাবে যাদের গ্রেফতার করা  হয়েছে তাদের মুক্তির দাবি জানানো হয়েছে এদিন।তবে সিবিআই তদন্তের দাবিতে বিদ্যালয় ময়দানের একাংশ জুড়ে মৃতের পরিবারের সদস্য দের পাশাপাশি অভিভাবক দের অবস্থান ধর্ণা চলবেই। মৃত  রাজেশ সরকারের বাবা নীলকমল সরকার জানান,পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ ভেবে তারা বিদ্যালয় বন্ধের বিষয় থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন।কিন্তু একটি শর্ত রয়েছে তাদের।নিরপরাধ গ্রামবাসীদের নিঃশর্ত মুক্তির পাশাপাশি আর কাউকে পরবর্তীতে গ্রেফতার করা যাবেনা।এবং দোষীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দিতে হবে।যদি দাবি পূরণ না হয় তবে তারা প্রয়োজনে অনশনে যাবেন বলেও জানান তিনি।

এদিকে দারিভিট কান্ডে গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত দুই পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানাবার পাশাপাশি তাদের সাথে  বুধবার দুপুরে কথা বলতে এলেন দারিভিট হাই স্কুলের শিক্ষকরা।বুধবার দুপুরে প্রায় দশজন সহশিক্ষক মৃত দুই পড়ুয়ার বাড়ি পৌঁছান।যদিও শিক্ষকরা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে চাননি।তারা শুধু মৃতদের পরিবারের সাথে শুধু দেখা করতে এসেছেন বলে জানান।এলাকার বাসিন্দা নরেন শিকদার জানান,এদিন শিক্ষকরা মৃতদের পরিবারের সাথে দেখা করবার পাশাপাশি স্কুল সম্পর্কিত বিষয় নিয়েই অভিভাবক দের সাথে আলোচনা করেন।ঘটনার জন্য তারা দুঃখ প্ৰকাশও করেন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This is todays COVID data

[covid-data]